‘বিএনপি নির্বাচন সামনে রেখে সন্ত্রাস করলে ফল ভালো হবে না’


আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করলে ফল তাদের জন্য ভালো হবে না।

তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার বিএনপির নেতা-কর্মীরা গাড়ি ভাঙচুর করে প্রমাণ করেছে যে, তাদের গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধা নেই। তারা সুযোগ পেলেই নাশকতা করে। সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারের অধীনেই নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে। তার কোনো ব্যত্যয় হবে না।’

৬ ডিসেম্বর বুধবার বিকেলে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ইউনেস্কোর প্রামাণ্য দলিল হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় কালচারাল রিপোটার্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন হানিফ।

এসোসিয়েশনের সভাপতি অভি রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর এডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান বাদল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা ও কালচারাল রিপোটার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক দুলাল খান।

মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। কারণ তারা গত জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। দেশের জনগণের ওপর বিএনপির কোনো আস্থা নেই বলেই তারা সন্ত্রাস ও নাশকতার পথ বেছে নেয়। কিন্তু আওয়ামী লীগ যে উন্নয়ন করেছে তাতে জনগণের উপর আস্থা রয়েছে। দেশের জনগণ আবারো আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করবে।

হানিফ বলেন, দেশের জনগণ বিএনপি জামায়াতের যেকোনো সন্ত্রাস মোকাবেলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও নির্বাচিত করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

সভায় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের উন্নয়নের রেকর্ড করেছেন। বিশ্ব নেতৃবৃন্দ দেশের এ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে সারা বিশ্বের জন্য অনুকরণীয় হিসেবে অভিহিত করেছেন। উন্নয়নের এ ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নির্বাচিত করতে হবে।