সিনিয়র সিটিজেনদের বয়স ৬৫ করার আহ্বান অর্থমন্ত্রীর


সিনিয়র সিটিজেন হওয়ার বয়স ৬০ বছরের পরিবর্তে ৬৫ করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

৪ ডিসেম্বর সোমবার নগরীর সোনারগাঁও হোটেলে এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের আমলেই যেন সিনিয়র সিটিজেনদের ন্যূনতম বয়স সীমায় একটি পরিবর্তন আসে, তিনি তা দেখতে চান।

মন্ত্রী বয়স্কদের কিছুটা আনন্দ দেওয়ার জন্য ওল্ড হোমে গিয়ে তাদের সময় দিতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকেরই ওল্ড হোমে যাওয়া উচিত, সিনিয়র নাগরিকদের আনন্দ দেয়ার জন্য, এটা আমাদেরও আনন্দ দেবে।’

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য ‘অবসর, মাই ড্রিম ল্যান্ড’ নামে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে (পিপিপি) একটি অবকাশ যাপন কেন্দ্র গড়ে তোলার জন্য সমাজসেবা অধিদপ্তর এবং ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের (সাবেক আয়শা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) মধ্যে এই চু্ক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

সমাজসেবা অধিদপ্তরের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক গাজী মোহাম্মদ নূরূল কবির এবং ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পক্ষে এর চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, অর্থ পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদ ও সমাজকল্যাণ সচিব মো. জিল্লুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।