হ্রদের তলদেশে মিলল ৩ হাজার বছরের পুরানো প্রাসাদ


তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় ভ্যান হ্রদের তলদেশে হাজার হাজার বছরের পুরানো রাজপ্রাসাদের সন্ধান পেয়েছেন গবেষকরা। ধারণা করা হচ্ছে, ৩ হাজার বছর আগে লৌহ যুগের উরারতু রাজ্যের রাজার প্রাসাদ এটি।

ভ্যান হ্রদের আশেপাশেই গড়ে উঠেছিল উরারতু রাজ্য। গবেষকদের অনুসন্ধানে পাওয়া রাজপ্রাসাদের ব্যবহৃত পাথরগুলো ওই রাজ্যের অন্যান্য স্থাপনায় ব্যবহৃত পাথরের বৈশিষ্ট্যের সঙ্গে মিলে যায়।

হ্রদের পানির উচ্চতা বাড়তে থাকায় কোনো এক সময় এ সব স্থাপনা ছেড়ে চলে যেতে হয় উরারতুর অধিবাসীদের। কালক্রমে তা পানির অতলে হারিয়ে যায়।

তবে সদ্য সন্ধান পাওয়া এই প্রাসাদের সবকিছু এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হয়নি গবেষকদের। আপাতত দশমিক চার বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে তিন-চার মিটার পুরুত্বের দেয়াল দেখতে পেয়েছেন তারা। এ সব দেয়াল এখনও বেশ মজবুত রয়েছে। গবেষকরা বলছেন, হ্রদের ক্ষারীয় পানি এই দেয়াল সুরক্ষায় কাজ করেছে।

এর আগে চালানো এক সমীক্ষায় এই এলাকায় দশ মিটার উঁচু একটি চিমনির সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। স্থানীয় গভর্নর আরিফ কারামান বলেন, ‘এই গবেষণা আমাদের কয়েক হাজার বছরের পুরানো ঐতিহ্যের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে।’

এই গবেষণা দলে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন- আন্ডারওয়াটার ফটোগ্রাফার তাহসিন সেলান, ভ্যান ইয়োজুনসু বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারি ফ্যাকাল্টির গবেষক মোস্তফা আক্কাস। এ ছাড়া কয়েকজন ডুবুরিও এই গবেষণায় অংশ নেন।

তাহসিন সেলান বলেন, ‘ভ্যান হ্রদ তীরবর্তী এলাকায় নানা সভ্যতার বসতি ছিল। এসব সভ্যতার অধিবাসীদের মধ্যে নানা বিশ্বাস প্রচলিত ছিল। এই গবেষণার মধ্য দিয়ে হ্রদের গোপন বিষয়গুলো সামনে আসবে বলে আশা করছি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের খুঁজে পাওয়া বিষয়গুলো বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরেছি। পানির নিচে প্রাসাদ পাওয়া রহস্যজনক। পুরাতত্ত্ববিদরা এখানে এসে পরীক্ষা করুক। তারাই খুঁজে বের করুক প্রাসাদের ইতিহাস। আমরা জানতে পারব নানা অজানা কাহিনী।’