খালেদা জিয়ার দাবি জনগণের আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ: নজরুল


Projonmo ekattor 2030858572

জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বিএনপির নেতা নজরুল ইসলাম খান।

 

বিএনপির নেতা নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের যে দাবি বেগম খালেদা জিয়া জানিয়েছেন, এটা স্পষ্টই জনগণের আকাঙ্ক্ষার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ এবং রাজনৈতিক দাবি। এর সঙ্গে কারো প্রতি প্রতিহিংসা বা আক্রোশের ব্যাপার নেই। দেশনেত্রী স্পষ্ট করে বলেছেন, বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন না।’

‘খালেদা জিয়া যে ভাষণ দিয়েছেন, সেই ভাষণ শেখ হাসিনার প্রতি তার আক্রোশের নগ্ন বহিঃপ্রকাশ’ বলে ওবায়দুল কাদেরের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ১৩ নভেম্বর সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় নজরুল ইসলাম খান এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘জনসভায় বেগম খালেদা জিয়া শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে কোনো ব্যক্তিগত অভিযোগ করেন নাই। তিনি বলেছেন যে, শেখ হাসিনা বা এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণ যাবে না। এটা রাজনৈতিক বক্তব্য, এখানে কোনো আক্রোশের ব্যাপার নাই।’

নজরুল ইসলাম খান আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার যদি সত্যি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে, যদি তারা এটা বিশ্বাস করে যে, তারা অনেক উন্নয়ন করেছে, জনগণ তাদের ভালোবাসে। তাহলে বেগম খালেদা জিয়া দুইটা চ্যালেঞ্জ করেছেন, যেকোনো একটা গ্রহণ করুন।’

‘একটা হলো- কোনো বাধা না দিয়ে জনসভা করে দেখেন কার জনসভায় কত লোক হয়। আরেকটা হলো- নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হোক, সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ যদি বিজয়ী হয়, আমরা তাদেরকে গ্রহণ করব। কিন্তু তারা (আওয়ামী লীগ) জানে যে, তাদের কোনো সম্ভাবনা নাই। অতএব তারা দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন করতে চায় এবং সেটা কোন সরকার? তাদের সরকার’, বলেন বিএনপির এই নেতা।

জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম’ ৭১ এর সভাপতি ঢালী আমিনুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফউদ্দিন বকুল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার বক্তব্য রাখেন।

রোববার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভায় খালেদার জিয়ার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আজ খালেদা জিয়া যে ভাষণ দিয়েছেন, সেই ভাষণ শেখ হাসিনার প্রতি তার আক্রোশের নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে। সে সময় যে সরকার থাকবে, সেই সরকার পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার নির্বাচন অনুষ্ঠানে সহায়তা করবে।’

জনসভায় খালেদা জিয়া আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে অংশ নিতে আপত্তির কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। পাশাপাশি নির্বাচনে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েন করা এবং ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) চালুর উদ্যোগ বন্ধের দাবি জানান তিনি।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*