সৌদির কাছে হারিরির খোঁজ চাইলেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট


সৌদি আরবের কাছে লেবাননের সদ্য পদত্যাগ ঘোষণা করা প্রধানমন্ত্রী সাদ আল-হারিরির খোঁজ জানতে চেয়েছেন লেবানিজ প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন। গত ৪ নভেম্বর হারিরি সৌদি আরবে বসে লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সড়ে দাঁড়ানোর যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা মেনে নেননি দেশটির প্রেসিডেন্ট আউন।

পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে লোকচক্ষুর অন্তরালে চলে যাওয়ায় হারিরির অবস্থান নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ধোঁয়াশা। আর এতে সৌদি আরবে হারিরিকে আটকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করে আসছে লেবাননের কর্তৃপক্ষ।

লেবানন সরকারের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন একটি বিবৃতির মাধ্যমে সৌদি আরবকে সাদ আল-হারিরির অবস্থানের বিষয়টি পরিষ্কারের অনুরোধ জানিয়েছেন।

এর আগে মিশেল আউন তার দেশে নিযুক্ত বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের জানান, হারিরি সৌদি আরব কর্তৃক ‘অপহৃত’ হয়েছেন এবং তিনি কূটনৈতিকভাবে ছাড়া পাওয়ার যোগ্য।

১১ নভেম্বর শনিবার বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগকে ঘিরে যে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে, তা সত্যের প্রতিফলন নয়। লেবানন কখনো আন্তর্জাতিক চুক্তির সঙ্গে দ্বন্দ্ব তৈরি করে, এমন কোনো পদক্ষেপের সঙ্গে তাদের প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন মেনে নেবে না।’

এদিকে ইরানের মদদপুষ্ট লেবাননের রাজনৈতিক সংগঠন হিজবুল্লাহ অভিযোগ করছে, সৌদি আরব সাদ আল-হারিরিকে আটকে রেখেছে।

হারিরিকে ঘিরে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, লেবানন যেকোনো সময় ‘ছায়া যুদ্ধক্ষেত্রে’ পরিণত হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইতোমধ্যে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস হুঁশিয়ারি দেন, ‘মধ্যপ্রাচ্যে নতুন কোনো লড়াইয়ের ফল ভালো হবে না।’