১১২ মিলিয়ন ইউরোতেও জাভির শূন্যস্থান পূরণ হয়নি বার্সেলোনার!


xavi-fcb-747114629

১৯৯১ সালে মাত্র ১১ বছর বয়সে বার্সেলোনায় পা রাখা জাভি হার্নান্দেজ বেড়ে ওঠেন বার্সেলোনার ফুটবলার তৈরির কারখানা ‘লা মেসিয়া’য়। ১৯৯৭ সালে সুযোগ পান বার্সেলোনার ‘বি’ দলে। কাতালানদের মূল দলে সুযোগ পেতেও বেশিদিন অপেক্ষা করতে হয়নি। পরের বছরই মূল দলে অভিষেক হয় জাভির। তার পর থেকে ধীরে ধীরে নিজেকে পরিণত করেন একজন জাত মিডফিল্ডার হিসেবে।

বার্সেলোনার অনেক সাফল্যের সাক্ষী জাভি। কাতালানদের হয়ে তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ, আটটি স্প্যানিশ লা লিগা, দুটি কোপা দেল রে ও দুটি ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছেন স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার। তবে দীর্ঘ ১৭ বছরের সম্পর্কের ইতি টেনে ২০১৫ সালের ২১ মে বার্সেলোনা ছাড়ার ঘোষণা দেন জাভি। এরপর থেকে জাভির শূন্যস্থান পূরণে হন্যে হয়ে খুঁজে বেড়াচ্ছে ক্লাবটি।

সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত এই খাতে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার খরচ ১১২ মিলিয়ন ইউরো। তবুও পূরণ হয়নি জাভির শূন্যস্থান। জাভির থাকাকালীন বার্সায় যোগ দেন ইভান রাকিটিচ। মিডফিল্ডে তার সঙ্গী ছিলেন সার্জিও বুসকেটস ও আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। এখনও তারা আছেন। তবে এক ‘জাভি’র অভাব পূরণে যে তারা কেউই যথেষ্ট নন, রোববার রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচে সেটি প্রমাণ হয়েছে আরও একবার।

জাভি ন্যু ক্যাম্প ছাড়ার পর মিডফিল্ডার হিসেবে ৩৪ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে আর্দা তুরানকে দলে ভেড়ায় বার্সেলোনা। পরের মৌসুমে ৩৫ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে আনা হয় আন্দ্রে গোমেজকে। এছাড়া আছেন দেনিস সুয়ারেজ। যদিও স্প্যানিশ এই মিডফিল্ডার নিয়মিত জায়গাই পান না একাদশে। সর্বশেষ মার্কো ভেরাত্তি ও জিয়ান মিশেল সেরির নাম বারবার শোনা গেলেও ৪০ মিলিয়ন ইউরোতে ব্রাজিলের পাওলিনহোকে দলে ভিড়িয়েছে কাতালানরা।

দেখার বিষয়, পাওলিনহো জাভির জায়গা পূরণ করতে পারেন কিনা!