‘আল-আকসার জন্য আমি মরতে যাচ্ছি’, ফিলিস্তিনি তরুণের স্ট্যাটাস ফেসবুকে ভাইরাল!


ওমর আল আবেদ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি মর্মস্পর্শী স্ট্যাটাস দিয়েছেন ওমর আল আবেদ নামের ১৯ বছরের এক ফিলিস্তিনি তরুণ। তিনি লিখেছেন, ‘আমি আমার শেষ ইচ্ছার কথা লিখছি, এটাই আমার জীবনের শেষ কথা। আর তা হলো- আল-আকসার জন্য আমি মরতে যাচ্ছি।’ ফেসবুকে এই পোস্ট দেওয়ার দুই ঘণ্টার মাথায় ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের হালামিসহে ইসরাইলি সৈন্যদের ওপর ছুরি হামলা চালান ওই তরুণ। এতে তিন ইসরাইলি সৈন্য নিহতও হয়। হামলার পরপরই ইসরাইলি সৈন্যরা ওমরকে ধরে ফেলে এবং সাথে সাথে তাকে গুলি করে হত্য করা হয়।

ওমরের ওই ফেসবুক স্ট্যাটাস ঘটনার পরপরই ভাইরাল হয়ে যায়। ফিলিস্তিনের তরুণদের কাছে ওমর ‘সাহসের প্রতীক’ হয়ে উঠছেন।

আরবি ভাষায় লেখা ওমরের স্ট্যাটাসটি ইংরেজিতে অনুবাদ করে প্রকাশ করেছে ইসরাইলি সংবাদপত্র হারেত্জ। তাতে বলা হয়- ওমর আল আবেদ তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘এখনও আমার বয়স বিশ বছরও হয়নি। আমার জীবনে অনেক স্বপ্ন ছিল। অনেক সম্ভাবনাময় একটি জীবন রয়েছে আমার। কিন্তু এ কেমন জীবন? আমি যখন ভাবি এটা আমার কেমন জীবন, যখন দেখি ইসরাইলিরা কোনো যৌক্তিক কারণ ছাড়াই ফিলিস্তিনি নারী-পুরুষ ও তরুণ-শিশুদের হত্যা করে, অথচ কোনো দেশের কোনো মুসলিম এর প্রতিবাদ করছে না! আমি জীবনকে ভালোবাসি এবং অন্যদেরকে সুখী করতে ভালবাসি, কিন্তু আল-আকসাতে নারী ও যুবকদের হত্যা করার পর আমি বাঁচতে পারি না। মুসলিমদের পবিত্র মসজিদ আল-আকসাকে অপবিত্র করা হচ্ছে কোনো কারণ ছাড়াই- এটা কেমন নিরাপত্তা? অথচ এখনও আমরা ঘুমিয়ে আছি। এটি খুবই লজ্জার ব্যাপার যে ফিলিস্তিনিদের এত অপমান-নির্যাতন করার পরও আমরা অলস বসে আছি।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘আমি আমার পরিবারের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আমি জানি আমি আর ফিরে আসব না। আমি স্বর্গে যাওয়ার পথে চলেছি।’

একই পোস্টে ওমর ফিলিস্তিনিদের কাছে থাকা অস্ত্রকে বিবাহ-শাদি ও নানা ধর্মীয় উৎসবে ব্যবহার করার বিষয়টিকে তাচ্ছিল্য করে লিখেছেন, ‘তোমরা বসে থাকো তোমাদের কাছে জমানো অস্ত্র নিয়ে। আমার কাছে শুধু একটি চকচকে ছুরি আছে। আমার এই ছুরিটি পবিত্রঘর আল-আকসার ডাকে সাড়া দিচ্ছে এবং আমি এই ছুরিটি নিয়েই আল আকসার ডাকে সাড়া দিচ্ছি। আমি আল আকসার জন্য মরতে যাচ্ছি।’

তিনি লিখেছেন, ‘হে ইসরাইলিরা! তোমরা জেনে রাখো, আল্লাহ তোমাদের প্রতিশোধ নেবেন। আমরা সবাই ফিলিস্তিনের সন্তান। আল-আকসা আমাদের মা। হে ইসরাইলিরা! জেনে রাখো, যদি তোমরা মসজিদুল আকসার দরজা খুলে না দাও, আল্লাহ তোমাদের শাস্তি দেবেন। আমি তোমাদের হুঁশিয়ার করছি।’

এই ঘটনার পর শনিবার ইসরাইলি সৈন্যরা পশ্চিম তীরের কোবর গ্রামে ওমরের পরিবারের খোঁজে অভিযান চালায় এবং তার এক ভাইকে আটক করে। এই হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওমর ও তার পরিবার বিপদে পড়লেও ফিলিস্তিনি তরুণদের কাছে ওমর আল আবেদ এখন একটি সাহসের নাম। একজন মুসলিম আদর্শ ফিলিস্তিনি তারুণ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছেন তিনি। তার ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাস নিয়ে ব্যাপক তুমুল আলোচনা চলছে।

এদিকে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ সংস্থা হামাস ওমর আল আবেদের হামলাকে সমর্থন করেছে এবং সংগঠনটির মুখপাত্র হুসাম বাদরান বলেন, ‘আল-আকসা মসজিদের সমর্থনে আমরা সর্বাত্মক লড়াই চালিয়ে যাব।’

উল্লেখ্য, শুক্রবার আল-আকসা মসজিদে প্রবেশে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি বিক্ষোভ করেছেন এবং ইসরাইলি বাহিনী তাদের ওপর নানাভাবে হামলা চালাচ্ছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*