রাষ্ট্রপতির নৈশভোজে যা খেলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট


article

বাংলাদেশ সফররত শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার সম্মানে নৈশভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে বঙ্গভবনের দরবার হলে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের সফরসঙ্গীরাও অংশ নেন ওই নৈশভোজে। তার ওই ভোজে অতিথিরা আপ্যায়িত হয়েছেন রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলের বাবুর্চির রান্না করা খাবারে।

১৪ জুলাই শুক্রবার রাতে অনুষ্ঠিত এই নৈশভোজে গলদা চিংড়ি আর বিরিয়ানি ছাড়াও সাত ধরনের খাবার পরিবেশন করা হয়।

শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট সন্ধ্যা সাতটার দিকে বঙ্গভবনে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। পরে তারা অংশ নেন সৌজন্য সাক্ষাতে। এরপরই বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন অতিথিরা। এরপরই পরিবেশিত হয় নৈশভোজ।

চার কোর্সের এই খাবারের প্রথমেই টেবিলে পরিবেশিত হয় ‘স্মোকড হিলসা অন টোস্ট’। এরপরই আসে ব্রেড অ্যান্ড বাটারের সঙ্গে ক্রিম অব মাশরুম স্যুপ।

মেইন কোর্সে প্রথমে টেবিলে আসে স্পাইসি পমফ্রেট, পরে ফরাসি কায়দায় রান্না করা ডিশ ‘লবস্টার থারমিডর’। এদের সঙ্গে ছিল বয়েলড ভেজিটেবল। এরপর হায়দ্রাবাদি ভেজিটেবল বিরিয়ানির পরিবেশনের পর ডেজার্টে দেওয়া হয় মালাই চপ ও ফল।

রাষ্ট্রপতির এই নৈশভোজে প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও তার স্ত্রী ক্রিস্টিনা ওভারমায়ার এবং প্রধানমন্ত্রীর মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন ও তার স্বামী খন্দকার মাশরুর হোসেন মিতু, ছাড়াও স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ উপস্থিত ছিলেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, বাণিজ‌্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা মশিউর রহমান, ভারতের হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম নৈশ ভোজে অংশ নেন।