প্লাস্টিক সার্জারি করে ৩০ বছর পুলিশের চোখে ধুলো, তবু হলো না শেষ রক্ষা


বিভিন্ন সময়ে প্লাস্টিক সার্জারি করে চেহারায় পরিবর্তন এনে পুলিশের চোখ ফাঁকি দেন রোচা

 

ব্রাজিলের মাদক সম্রাট লুইজ কার্লোস দা রোচা প্রায় ৩০ বছর ধরে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে বেড়াতে সক্ষম হয়েছিল শুধু প্লাস্টিক সার্জারির সাহায্য নিয়ে। যার ডাকনাম ছিল ‘হোয়াইট হেড’। অবশেষে ‘অপারেশন স্পেকট্রাম’ নামে এক অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ব্রাজিল পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হচ্ছে, দক্ষিণ আমেরিকার কোকেনের যে বিশাল সাম্রাজ্য-সেটার নিয়ন্ত্রণকারী বা নেতা ছিলেন লুইজ কার্লোস দা রোচা। শনিবার তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে এমনি একজন অপরাধী যে বুদ্ধিমত্তা এবং ছায়ার মধ্যে বসবাস করতো।

আটকের সময় তার কাছে থাকা বিপুল অর্থ এবং অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ

 

বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত খবর থেকে জানা যায়, লুইজ কার্লোস দা রোচা বিভিন্ন সময়ে প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে যেমন নিজের চেহারা বদল করেছেন তেমনি একাধিক নাম রয়েছে তার। সবশেষ ভিটর লুইজ নামে সে পরিচিতি ছিল। পুলিশ এখন নিশ্চিত করেছে এই দুই নাম একই ব্যক্তির।

ব্রাজিলের পুলিশ আরও জানায়, বলিভিয়া, পেরু, কলাম্বিয়াতে সে কোকেইন উৎপাদন করতো এবং সেটা ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এবং আমেরিকাতে পাঠাতো। এ ছাড়া তার সংস্থার বিরুদ্ধে ভারী অস্ত্র তৈরিসহ নানা প্রকার সহিংসতার অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ বলছে, এর আগে তার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে তার ফলে লুইজ কার্লোস দা রোচাকে অন্তত ৫০ বছর জেলে কাটাতে হবে। প্রতি মাসে ৫ টনের মত কোকেন উৎপাদন করতো এ মাদক সম্রাটের নিয়ন্ত্রিত সংস্থাটি।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*