প্রধানমন্ত্রী একটা কাগজ নিয়ে এলেও বাহবা দিতে পারতাম: ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী


ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

 

প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার সময় একটা কাগজ নিয়ে এলেও বাহবা দিতে পারতাম বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

দৈনিক আমার দেশ পত্রিকা বন্ধের চার বছর উপলক্ষে ১১ এপ্রিল মঙ্গলবার রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

ভারত অর্থনীতি দিয়ে বাংলাদেশ দখল করছে বলে অভিযোগ করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার সময় একটা কাগজ (সীমান্তে আর বাংলাদেশিদের হত্যা করা হবে না) হাতে নিয়ে আসলেও বাহবা দিতে পারতাম।

সম্প্রতি গণমাধ্যমে দেশের মানসিক অবসাদে আক্রান্ত জনগোষ্ঠীকে নিয়ে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় বিএনপিও এ রোগে আক্রান্ত। বিএনপি অবসাদে ভুগছে। যারা নিজেদের ঘর সামলাতে পারছে না, তারা কী আর করবে?’

সে সময় বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে নির্বাচন না হয়ে যদি জানুয়ারিতে হয়ে যায় আপনারা কি প্রস্তুত আছেন? মনে হয় না।’

খালেদা জিয়ার দিন শুরু হয় রাত ৯টায় উল্লেখ করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আপনাকে (খালেদা জিয়া) বলেছিলাম, সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নেতাকর্মীদের জন্য আপনার দরজা খুলে দেন। কিন্তু বেগম জিয়া কথা শোনেননি। বলা হচ্ছে, বিএনপির ১২ হাজার বা এর অধিক নেতাকর্মী এখনও আটক রয়েছেন।’ তাদের নাম প্রকাশ করারও দাবি জানান তিনি।

সে সময় তিনি বিএনপিকে অহমিকা ছেড়ে বিরোধী দলের সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে আন্দোলনে যাওয়ার আহবান জানান।

মাহমুদুর রহমান ও বিএনপি নিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী আরও বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, এখনও দেশের ৪/৫ কোটি মানুষের মাহমুদুর রহমান সাহেবের প্রতিও অনেকের অগাধ আস্থা রয়েছে। তবে এতো অগাধ আস্থা থাকা সত্ত্বেও আমরা কিন্তু মাহমুদুর রহমানকে বের করে আনতে পারিনি। হয়রানিমূলক মামলায় মাহমুদুর রহমানকে আটক করার পরও আমরা পারিনি বিচার বিভাগ ঘেরাও করতে।’

প্রতিবাদ সমাবেশে আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. এমাজউদ্দিন আহমদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু প্রমুখ।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*