ব্লাসফেমি কনটেন্ট রুখতে পাকিস্তানের পাশে ফেসবুক


 

সম্প্রতি পাকিস্তান ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক কনটেন্ট পোস্টের তদন্ত করতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের কাছে সাহায্যের অনুরোধ করেছিল। আর এই অনুরোধে সাড়া দিয়ে ফেসবুক ইতোমধ্যে সাইটটি থেকে এ ধরনের প্রায় ৮৫ শতাংশ কনটেন্ট সরিয়ে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন এক কর্মকর্তা।

পাকিস্তানের টেলিযোগাযোগ কর্তৃপক্ষ পিটিএ এর চেয়ারম্যান ইসলামাবাদ হাই কোর্টের একটি বেঞ্চকে জানিয়েছে, ২৫ জনের একটি দল সামাজিক মাধ্যমটিতে মানহানিকর কনটেন্ট খুঁজছে। সামাজিক মাধ্যমটিতে এ ধরনের আচরণ বন্ধে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা নিয়ে নতুন করে প্রতিবেদন দাখিলে পিটিএ কে নির্দেশনা দেয় আদালত। পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র সচিব এ বিষয়ে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপগুলো সম্পর্কে আদালতকে অবহিত করেছে। এ সম্পর্কিত অপরাধের সঙ্গে যুক্ত তিনজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ব্লাসফেমি পাকিস্তানে একটি অত্যন্ত সংবেদনশীল ইস্যু। সমালোচকরা বলছেন ব্লাসফেমি আইন, যা কিছু কিছু ক্ষেত্রে মৃত্যুদণ্ডের অনুমতি দেয়। প্রায়ই সংখ্যালঘুদের প্রতি এটির অপব্যবহার করা হয়ে থাকে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্লাসফেমি কনটেন্টের বিষয়ে দলের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক প্রতিবেদনে জানান, ব্লাসফেমি একটি ‘অমার্জনীয় অপরাধ’।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*