নতুন প্রজন্মের উন্নত জীবন গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছি: প্রধানমন্ত্রী


HASANA-1417213387

২০৪১ সালে আমাদের নতুন প্রজন্ম যেন উন্নত জীবন পায় সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ এবং গবেষকদের বিশেষ অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ছেলেমেয়েরা অনেক মেধাবী, আমাদের চেয়েও বেশি মেধাবী। তারা এই যুগের ডিজিটাল বাচ্চা হিসেবে বড় হচ্ছে। ২০৪১ সালে আমাদের নতুন প্রজন্ম যেন উন্নত জীবন পায় সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আজকের যারা শিশু তারাই আগামী দিনে কর্ণধার হবে। আর সেটা হতে হবে আরো বেশি শিক্ষিত হয়ে, জ্ঞান অর্জন করে। জ্ঞান-বিজ্ঞান ছাড়া, শিক্ষিত জাতি ছাড়া এদেশ কোনো দিন উন্নত হবে না। তাই অন্য কোনো দিকে মন না দিয়ে সবার আগে লেখাপড়া এবং এরপর জ্ঞান-বিজ্ঞান, খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চার দিকে শিক্ষার্থীদের মন দেওয়ার আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গতে তোলাই বর্তমান সরকারের লক্ষ্য। গবেষণা ছাড়া কোনো দেশ উন্নত করা সম্ভব নয়। এজন্য আমরা গবেষণার উপর বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। বর্তমানের আমাদের কৃষি জমি কমলেও খাদ্য উৎপাদন কমেনি। এটি হয়েছে গবেষণার জন্য। তিনি বলেন, ৯৬-তে সরকার গঠনের পর আমরা গবেষণার জন্য অনেকেই বাইরে পাঠাই। কিন্তু বিএনপি এসে সেগুলো বন্ধ করে দেয়। ভবিষ্যতে এরকম যাতে না হয় তাই আমরা একটি ট্রাস্ট গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ অন সায়েন্স অ্যান্ড আইসিটি’ প্রকল্প থেকে এসব ফেলোশিপ ও অনুদান দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, এ প্রকল্পের আওতায় বিদেশে ৫০ জন এমএস, ৬০ জন পিএইচডি, দেশে ১০০ জন পিএইচডি এবং ১১ জন পিএইচডি উত্তর গবেষণা ফেলোশিপ পেয়েছেন। ইতোমধ্যে বিদেশে ৩৭ জন এমএস, ৩০ জন পিএইচডি এবং দেশে ৩৮ জন পিএইচডি ও ৮ জন পিএইচডি উত্তর কোর্সে গবেষণা কার্যক্রম শেষ করেছেন। তিনি বলেন, মন্ত্রণালয় এমফিল, পিএইচডি ও পিএইচডি উত্তর শিক্ষার্থীদের ‘জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফেলোশিপ’ দিচ্ছে। ২০০৯-১০ থেকে ২০১৪-১৫ অর্থবছর পর্যন্ত ৪ হাজার ৮৭২ জন তরুণ গবেষকের মধ্যে ৩১ কোটি ২০ লাখ ২৬ হাজার টাকা ফেলোশিপ দিয়েছে। চলতি অর্থবছরে ১ হাজার ৪৩৮ জন গবেষককে ৮ কোটি ৩৩ লাখ ৬৩ হাজার ৩০০ টাকা দেওয়া হবে। শেখ হাসিনা বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণায় প্রণোদনা হিসেবে মন্ত্রণালয় ‘গবেষণা অনুদান’ দিচ্ছে। ২০০৯-১০ থেকে ২০১৪-১৫ অর্থবছর পর্যন্ত ১ হাজার ৩৭২টি প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৭ কোটি ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা গবেষণা অনুদান দিয়েছে। বর্তমান অর্থবছরে ৩৯০টি প্রকল্পের মাধ্যমে ১২ কোটি ৮ লাখ টাকা দেওয়া হবে। তিনি বলেন, স্বাধীন রাষ্ট্র অর্জনে আমাদের দীর্ঘ সংগ্রামের পথ পাড়ি দিতে হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু এ সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন। স্বাধীন দেশেও তিনি শিক্ষানীতি প্রণয়নের উদ্যোগ নেন। স্বাধীন দেশের সংবিধানেও শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেন তিনি। বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে, এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।