এখনই ক্ষমতা ছাড়ছেন না পুতিন


রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন পারকিনসন্স রোগে আক্রান্ত হয়েছেন এবং এ কারণে শিগগিরই ক্ষমতা ছেড়ে দিতে পারেন বলে ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলো যে খবর দিয়েছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে মস্কো।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, ভ্লাদিমির পুতিন ‘সুস্থ আছেন’ এবং ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলো ‘আজগুবি’ কথা বলছে। পেসকভ আরও বলেছেন, ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর বিন্দুমাত্র ইচ্ছা বা পরিকল্পনা পুতিনের নেই।

সম্প্রতি পুতিনের অবসর নিয়ে জল্পনা কল্পনা চলছেই। আগামী বছরের জানুয়ারিতেই তিনি নাকি প্রেসিডেন্ট পদ থেকে অবসর নেবেন! বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে শোরগোল পড়ে গেছে।

মস্কোর রাজনৈতিক বিজ্ঞানী ভ্যালেরি সোলোভেইকে উদ্ধৃত করে নিউইয়র্ক পোস্ট জানিয়েছে, পুতিন পারকিনসন্সে ভুগছেন। তাই তার শারীরিক অবস্থার কথা বিবেচনা করেই দুই মেয়ে এবং বান্ধবী এই গুরুদায়িত্ব থেকে অবসর নেওয়ার জন্য ‘চাপ’ দিচ্ছেন।

লন্ডন থেকে প্রকাশিত ডেইলি মেইল পত্রিকা এক প্রতিবেদনে লিখেছিল, মস্কোর নির্ভরযোগ্য সূত্র দাবি করেছে, প্রেসিডেন্ট পুতিন নিজের সম্ভাব্য পারকিনসন্স রোগের কারণে আগামী জানুয়ারি মাসেই ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াবেন। এর আগে গত সপ্তাহে খবর বেরিয়েছিল যে, রাশিয়ায় এমন একটি আইন তৈরি করা হচ্ছে যার ফলে ভ্লাদিমির পুতিন আজীবন সিনেটরের মর্যাদা লাভ করবেন।

সোলেভেইয়ের দাবি, সম্প্রতি পুতিনের শরীরে পারকিসন্সের নানা উপসর্গ ধরা পড়েছে। দ্য ইউএস সান-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুতিনের যে শারীরিক সমস্যা হচ্ছে সম্প্রতি তার একটি ফুটেজ সামনে এসেছে। তার হাত-পা কাঁপছিল। কলম ধরতেও সমস্যা হচ্ছিল।

শারীরিক অবস্থার কথা সামনে আসতেই পুতিনের উত্তরসূরি কে হবেন তা নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়ে গেছে। সোলেভেই-এর দাবি, ইতোমধ্যেই নতুন প্রেসিডেন্ট নিয়োগের ভাবনা-চিন্তা শুরু হয়ে গেছে। তাকেই পুতিনের উত্তরসূরি হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হবে।