টানা চার দিন যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত


 

টানা চতুর্থ দিনের মতো স্থানীয় সময় শনিবারও যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের দেহে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। ওই দিন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩১ হাজার ৪২০ জন; যা এ পর্যন্ত দৈনিক সর্বোচ্চ। এ নিয়ে দেশটিতে মোট করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯৯ লাখ ১০ হাজার।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের দেয়া হিসাব অনুযায়ী শনিবার দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যের মধ্যে ১৭টিতেই রেকর্ড কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। অপরদিকে ১৪টি রাজ্যে রেকর্ড সংখ্যক মানুষ ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে। এ ছাড়া শনিবার টানা পঞ্চম দিনের মতো দেশজুড়ে এক হাজারের বেশি মানুষের করোনায় মৃত্যু হয়েছে।

নভেম্বরের প্রথম সাত দিনে দেশটির দশটি অঙ্গরাজ্যে দৈনিক করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল রেকর্ড সর্বোচ্চ। এই রাজ্যগুলো আরকানসাস, ইডাহো, মিনিয়েসোটা, নেব্রাস্কা, নিউ মেক্সিকো, নর্থ ডাকোটা, সাউথ ডাকোটা, উতাহ, ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া এবং ভোয়েমিং। গত মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) ছিল দেশটির নির্বাচন। এতে সংক্রমণ বেড়েছে।

গত এক সপ্তাহের হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে গড়ে দৈনিক এক লাখের বেশি মানুষ মহামারি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন; যা ভারত ফ্রান্সের গড় হিসাবের চেয়েও বেশি। অথচ করোনায় বিপর্যস্ত ইউরোপ ও এশিয়ায় এই দুই দেশের ভাইরাসটির প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। দুই মহাদেশে শীর্ষে থাকা দুই দেশকেও টপকে গেছে যুক্তরাষ্ট্র।

জন প্রতি করোনায় আক্রান্তের দিক বিচারে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্য-পশ্চিমাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে ভাইরাসটির প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। এই অঞ্চলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত রাজ্য হলো ইলিনয়। রাজ্যটি এখন যুক্তরাষ্ট্রে করোনা প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। গত সাত দিনে এই রাজ্যটিতে ৬০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে।

শনিবারও রাজ্যটিতে নতুন করে ১২ হাজার ৪৫৪ জন কোভিড আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েচেন। এখন পর্যন্ত যা একদিনে সর্বোচ্চ। এ দিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম রাজ্য হিসেবে টেক্সাসে মোট করোনার সংক্রমণ দশ লাখ ছাড়িয়েছে। গত সাত দিনে গড় করোনা সংক্রমণ ছিল ৮ হাজার। যুক্তরাষ্ট্রের ১০ শতাংশ রোগী এই রাজ্যের।