নির্বাচনে সহজ জয় পেতে যাচ্ছেন জাসিন্ডা: জনমত জরিপ


কিছুটা সমর্থন হারালেও আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে অনায়াসে জয়ী হতে যাচ্ছে         নিউ জিল্যান্ডের ক্ষমতাসীন লেবার পার্টি। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) প্রকাশিত এক জনমত জরিপের ফলে এমন আভাস দেওয়া হয়েছে।

আগামী ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নিউ জিল্যান্ডের জাতীয় নির্বাচন। এতে দ্বিতীয়বারের মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। নির্বাচনকে সামনে রেখে একটি জনমত জরিপ পরিচালনা করেছে ওয়ান নিউজ ও ব্রুন্টন। মঙ্গলবার সে জরিপের ফল প্রকাশ করা হয়। এতে দেখা গেছে, অকল্যান্ডে নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রকোপ দেখা দেওয়ায় জুলাই থেকে লেবার পার্টির জনপ্রিয়তা খানিক কমেছে। ৪৮ শতাংশ মানুষ জাসিন্ডার দল লেবার পার্টির পক্ষে সমর্থন জানিয়েছে। গত জুলাইয়ে পরিচালিত জরিপের তুলনায় তা ৫ শতাংশ কম। প্রধান বিরোধী দল ন্যাশনাল পার্টি-এর জনপ্রিয়তাও আগের চেয়ে এক শতাংশ কমে ৩১ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। সম্প্রতি দলটির নেতা নির্বাচিত হয়েছেন জুডিথ কলিন্স।

জনমত জরিপের ফল বিশ্লেষণ করে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনে লেবার পার্টি ৬২টি আসন পাবে। ক্ষমতায় আসীন হতে তাদেরকে জোট করতে হবে না। এককভাবে সরকার গঠন করতে পারবে তারা।

অপেক্ষাকৃত ছোট দল গ্রিন পার্টি জনমত জরিপে ৬ শতাংশ সমর্থন পেয়েছে। আর এসিটি নিউ জিল্যান্ড পেয়েছে ৭ শতাংশ সমর্থন। আর নিউ জিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টির সমর্থন কমে ২ শতাংশে নেমেছে।

শুধু এ জরিপই নয়, সম্প্রতি পরিচালিত সব ক’টি জনমত জরিপেই জাসিন্ডার সহজ জয়ের আভাস দেওয়া হয়েছে।

২০১৭ সালে বিশ্বের সবচেয়ে কনিষ্ঠ নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিউ জিল্যান্ডের ক্ষমতায় আসীন হন জাসিন্ডা। নারী অধিকার ও জলবায়ু পরিবর্তন রোধে সোচ্চার ভূমিকাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে দেশের ভেতরে ও বাইরে বিপুল প্রশংসা কুড়িয়েছেন এ নেত্রী। গত বছর ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলার পর তিনি যেভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেছেন, তাতেও বিপুল প্রশংসিত হয়েছেন।