ঘাস খেয়ে বাঁচব, তবু পাকিস্তানের সামরিক ব্যয় বাড়ান: শোয়েব আক্তার


লড়াইয়ের ক্ষেত্র যখন ক্রিকেটের পিচ, তখন সুইং-গতি আর বাউন্সে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানকে বারবার ঘায়েল করেছেন শোয়েব আক্তার। এখন তিনি মাঠের বাইরে। তবে বাউন্স ছোড়া থামাননি। সম্প্রতি কথার বাউন্স ছুড়েছেন রাওলপিন্ডি এক্সপ্রেস। বলেছেন, পাকিস্তানের সামরিক শক্তি বাড়ানোর জন্য যদি ঘাস খেয়ে বাঁচতে হয়, তাতেও রাজি আছেন তিনি।

পাকিস্তানের এক টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে শোয়েব আক্তার বলেন, ‘আল্লাহ যদি আমাকে ক্ষমতা দেন, তাহলে দরকারে আমি নিজে ঘাস খেয়ে বাঁচব তবু সেনাবাহিনীর বাজেট বৃদ্ধি করব’।

পাকিস্তানের জন্মলগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত সামরিক ও বেসামরিক শক্তির মধ্যে কখনও স্বাভাবিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়নি। বেসামরিক প্রশাসনে বারবার সামরিক হস্তক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি  বোধগম্য নয় শোয়েবের।  তিনি বলেন,  ‘(ক্ষমতা পেলে) আমি আমার আর্মি প্রধানকে নিয়ে বসব এবং সিদ্ধান্ত নেব। যদি বাজেট থাকে ২০ শতাংশ, আমি সেটাকে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেব। আমরা যদি একজন আরেকজনকে অপমান করি, তাহলে ক্ষতি হয় দুই পক্ষেরই। ’

সাক্ষাৎকারে শোয়েব আক্তার দাবি করেন, দেশের জন্য গুলি হজম করতেও রাজি ছিলেন তিনি। ১৯৯৯ সালে ভারতের বিরুদ্ধে কারগিল যুদ্ধে অংশ নেওয়ার জন্য কাউন্টি ক্রিকেটের অফার ছেড়েছিলেন বলে দাবি তার।