যুক্তরাষ্ট্রের আরও তিন রাজ্যে করোনা ভাইরাসে মৃত্যু


যুক্তরাষ্ট্রের আরও তিন রাজ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও চার জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। রাজ্যগুলো হচ্ছে ভার্জিনিয়া, লুজিয়ানা ও নিউ ইয়র্ক। তিন রাজ্যেই এ ভাইরাসে মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম। এক প্রতিবেদেন এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

ভার্জিনিয়ায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির বয়স ৭০ বছর। তবে তিনি কিভাবে সংক্রমিত হলেন তা জানা যায়নি। শনিবার শ্বাসকষ্টে ভুগে তার মৃত্যু হয়।

একই দিন লুজিয়ানায় মারা যাওয়া ব্যক্তির বয়স ৫৮ বছর। নিউ অরলিন্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিউ ইয়র্কেও নতুন করে দুইজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একজনের বয়স ৮২। অন্যজনের বয়স ৬৪। তাদের উভয়েরই আগে থেকে স্বাস্থ্যগত জটিলতা ছিল। বৃহস্পতিবার তাদের মৃত্যু হয়।

এদিকে শুক্রবার করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প নিজেই এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ সময় তিনি নিজের শরীরের তাপমাত্রা পুরোপুরি স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান। শনিবার হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক শন কনলি জানান, ওই পরীক্ষায় নেগেটিভ এসেছে। অর্থাৎ, ট্রাম্পের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

সম্প্রতি ফ্লোরিডায় ব্রাজিলের কূটনীতিকদের সঙ্গে এক নৈশভোজে মিলিত হন ট্রাম্প। পরে ওই নৈশভোজে অংশ নেওয়া দুই জন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এমন আরও কিছু ঘটনার প্রেক্ষিতে ট্রাম্পও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা, এমন প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের ব্রিফিং কক্ষে প্রবেশের আগে নজিরবিহীনভাবে সাংবাদিকের তাপমাত্রা পরীক্ষা করেন হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা। ওই ব্রিফিংয়ে ট্রাম্প বলেন, করোনা ভাইরাসের ফলে জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে। ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে আমি জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করছি। একদিন এই মহামারির অবসান ঘটবে।

এর আগে গত ১১ মার্চ হোয়াইট হাউস থেকে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে করোনা ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ইউরোপ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের ক্ষেত্রে নতুন বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দেন ট্রাম্প। ভাষণে তিনি বলেছেন, আগামী ৩০ দিনের জন্য ইউরোপ থেকে সব ধরনের ভ্রমণ স্থগিত থাকবে। তবে এটি যুক্তরাজ্যের জন্য প্রযোজ্য হবে না। পরে অবশ্য এ তালিকায় যুক্তরাজ্যকেও যুক্ত করা হয়।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান শহরের একটি বন্যপ্রাণীর বাজার থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনা ভাইরাস। এক পর্যায়ে ২০২০ সালের ১১ মার্চ এ ভাইরাস নিয়ে বিশ্বজুড়ে মহামারি পরিস্থিতি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ড ওমিটারস ডট ইনফো-র হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় ১৫ মার্চ সকাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে দুই হাজার ৮৩৬ জন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়ে উঠেছে ৪৯ জন।