‘বুড়ো’ ইব্রায় মিলানের জয়


৩১ বছর বয়সে ছেড়েছিলেন এসি মিলান। পুরনো ক্লাবে আবার এলেন, এবার ‘বুড়ো’ বয়সে। জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচকে নিয়ে তাই দুশ্চিন্তার শেষ ছিল না কোচ স্তেফানো পিওলির! এখন কিন্তু দুশ্চিন্তা ঝেড়ে ফেলতে পারেন তিনি। বয়স যে কোনও সমস্যাই নয়, সেটা মিলান কোচকে দেখিয়ে দিলেন ৩৮ বছর বয়সী সুইডিশ স্ট্রাইকার।

২০১২ সালে মিলান ছাড়েন ইব্রা। এরপর তিন দেশের তিন ক্লাব প্যারিস সেন্ত জার্মেই, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও এলএ গ্যালাক্সি ঘুরে আবার সান সিরো ক্লাবে। গত রবিবার সাম্পদোরিয়ার সঙ্গে ম্যাচে বদলি নেমেছিলেন, গোল করতে পারেননি, ম্যাচটি ড্র হয়। এক সপ্তাহ পর গতকাল শনিবার ক্যালিয়ারির মাঠে একাদশে সুযোগ পান। এক মাস ২ দিন পর প্রথম জয় পায় মিলান, ২-০ গোলে। দ্বিতীয় গোলটি করেন ইব্রা। ৬৪ মিনিটে বাঁ প্রান্ত থেকে পাস পেয়েই জালে বল জড়ান। তার আরেকটি গোল বাতিল হয় অফসাইডে। এই জয়ে মিলান ১৯ ম্যাচে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে অষ্টম স্থানে উঠেছে। তাদের চেয়ে চার পয়েন্টে এগিয়ে থেকে ছয়ে ক্যালিয়ারি (২৯)।

৮ বছর পর ফিরে পাওয়া প্রথম গোলের উদযাপনটা ইব্রা করেছেন সাদামাটা। কারণটা জানালেন নিজেই, ‘সান সিরোয় আমি ঈশ্বরের মতো উদযাপন করতে চাই, এখানে নয়।’ ২০১০ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ক্লাবটির জার্সিতে ৬১ লিগ ম্যাচে ৪২টি গোল করেন। ক্লাবটির হয়ে তার সর্বশেষ গোলটি ছিল ৫৭তম, আর সিরি ‘আ’তে ১২৩ তম। আগে ইন্টার মিলান ও জুভেন্টাসের হয়ে খেলেন তিনি।

কোচের সব সংশয় দূর হয়ে গেছে বিশ্বাস ইব্রার, ‘আমার এখন ভালো লাগছে। আমার বয়স নিয়ে কোচ ভাবছিলেন, আমার বিশ্রাম দরকার কিনা। কিন্তু কোনও সমস্যা নেই। আমার মস্তিষ্ক সবসময় একইরকম এবং সেটা মেনে চলে শরীর।’

প্রত্যাবর্তনের দ্বিতীয় ম্যাচে পেলেন গোল। মাত্র ছয় মাসের চুক্তিটা কি আরও বাড়ানোর কথা ভাববে মিলান?