সিডনি টেস্টের নিয়ন্ত্রণ অস্ট্রেলিয়ার হাতে


সিডনি টেস্টে আগের দিনটি মার্নাস লাবুশেনের কল্যাণে দখলে ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তৃতীয় দিনেও ব্যতিক্রম হয়নি। আধিপত্য স্বাগতিকদের। অবশ্য আজকের পুরোটা দিন ম্যাচের মূল চরিত্র হয়ে ছিলেন অফস্পিনার নাথান লায়ন। তার ঘূর্ণিতে ২৫১ রানেই শেষ নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংস। তাতে স্বাগতিকেরা পায় ২০৩ রানের লিড।

আগের দিন বিনা উইকেটে দিন শেষ করা কিউইরা এদিন ছিল আসা-যাওয়ার মাঝে। নিউজিল্যান্ডের ওপেনার টম ব্লান্ডেলকে ফিরিয়ে দিনের শুরুটা করেছিলেন লায়ন। আগের দিনের ৩৪ রানেই ফিরেছেন তিনি। তিনে নামা জিত রাভালকে ৩১ রানের বেশি করতে দেননি লায়ন। লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে বিদায় করেছেন। ফ্লুতে পুরোপুরি সুস্থ না হয়ে ফিরলেও রাভাল চেষ্টা করেছিলেন ক্রিজে থাকার।

এর পরেই ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক টম ল্যাথামকে ৪৯ রানে বিদায় দিয়েছেন প্যাট কামিন্স। আগের টেস্টে গতির ঝড় তোলা কামিন্স এই ইনিংসেও রেখেছেন অবদান। অভিজ্ঞ রস টেলরকেও এলবিডাব্লিউ করেছেন। টেলর ফিরেছেন ২২ রানে।

মাঝে শুধু প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টায় ছিলেন এই টেস্টে অভিষেক হওয়া গ্লেন ফিলিপস। অবশ্য তাতে ছোঁয়া ছিল ভাগ্যের। তিনবার জীবন পেয়ে অভিষেকেই ৫২ রান করে দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করেছেন। এই ফিলিপসকে বোল্ড করেছেন কামিন্স। তখন দলের স্কোর ছিল ৭ উইকেটে ২৩৫ রান।

তার বিদায়ের পর কিউইদের প্রতিরোধ টেকেনি নাথান লায়নের ঘূর্ণির সামনে। টপ অর্ডারের পর লেজ ছেঁটে দেন নিমিশেই। নিউজিল্যান্ড গুটিয়ে যায় ২৫১ রানে।

দুর্দান্ত বোলিং করা লায়ন ৬৮ রানে নিয়েছেন ৫ উইকেট। আর নতুন বছরেও ছন্দ ধরে রাখা কামিন্স ৪৪ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

বড় লিড পেয়ে এই টেস্টের নিয়ন্ত্রণ এখন অস্ট্রেলিয়ারই হাতে। কিউইদের ফলোঅন না করিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। বিনা উইকেটে ৪০ রানে তৃতীয় দিন শেষ করেছে তারা।  ডেভিড ওয়ার্নার  ব্যাট করছেন ২৩ রানে ও রোরি বার্নস অপরাজিত ১৬ রানে। অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে গেছে ২৪৩ রানে।