উত্তর প্রদেশে ‘ধর্ষণের রাজধানী’ উন্নাও!


ভারতের উত্তর প্রদেশের উন্নাও জেলায়  এ বছরের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত মোট ৮৬টি ধর্ষণ মামলা দায়ের হয়েছে। একই সময়ে যৌন হয়রানির মামলা হয়েছে ১৮৫টি। বেশিরভাগ মামলাতেই অভিযুক্তরা হয় জামিনে নয়তো পালিয়ে রয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশ রাজনৈতিকভাবে সম্পূর্ণ প্রভাবিত হয়ে পড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে উন্নাওকে উত্তর প্রদেশের ধর্ষণের রাজধানী আখ্যা দিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

উত্তর প্রদেশের রাজধানী লক্ষ্মৌ থেকে ৬৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জেলা শহর উন্নাও। পার্শ্ববর্তী কানপুর শহর থেকে এর দূরত্ব ২৫ কিলোমিটার। প্রায় ৩১ লাখ মানুষ বাস করে জেলাটিতে। এখানকার আশোয়া, আজগাইন, মাক্ষী, বাঙ্গারমাউ এলাকাতেও কয়েকটি ধর্ষণ ও নিপীড়নের মামলা দায়ের হয়েছে।

সম্প্রতি ওই শহরে সম্প্রতি আদালতের শুনানিতে যাওয়ার পথে ধর্ষণের শিকার এক নারীর গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এছাড়া বিজেপি-র এক আইনপ্রণেতার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ধর্ষণের মামলাও বেশ আলোচিত।

২০১৭ সাল থেকেই উত্তর প্রদেশ রাজ্যের ক্ষমতায় রয়েছে হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল বিজেপি। সেখানকার মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন বহুল আলোচিত বিজেপি নেতা যোগী আদিত্যনাথ। তার সরকারের বিরুদ্ধেই উঠেছে পুলিশকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহারের অভিযোগ।

উন্নাও জেলার আজগাইনের বাসিন্দা রাঘব রাম শুকলা বলেন, উন্নাও পুলিশ রাজনৈতিকভাবে সম্পূর্ণ প্রভাবিত হয়ে পড়েছে। রাজনৈতিক গুরুদের অনুমতি ছাড়া তারা এক ইঞ্চিও নড়তে পারে না। তাদের এই মনোভাবের কারণেই অপরাধীরা প্রশ্রয় পাচ্ছে।

স্থানীয় এক আইনজীবী বলেন, এখানকার রাজনীতিবিদরা রাজনৈতিক বিরোধ মোকাবিলার কাজেও অপরাধমূলক তৎপরতায় লিপ্ত হয়; আর পুলিশ তাদের অনুগত থাকে। সম্প্রতি একটি শহরের জন্য জমি অধিগ্রহণের প্রতিবাদে কৃষকদের ধর্মঘটে সহিংসতা হলেও পুলিশ নীরব ছিল। কোনও ঘটনাতেই পুলিশকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি।