মেসি-সুয়ারেজদের নতুন ইতিহাস


লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৩ গোল করার রেকর্ড গড়লেন লুইস সুয়ারেজ।
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে বার্সেলোনা। রোমার বিপক্ষে প্রথম লেগে বড় ব্যবধানে জিতেও দ্বিতীয় লেগে লজ্জাজনকভাবে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় স্প্যানিশ জায়ান্টরা।

তবে লা লিগায় পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে বার্সেলোনা। শনিবার ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষেও ২-১ গোলে জয় পেয়েছে আর্নেস্তো ভালভার্দের দল। আর তাতেই নতুন এক ইতিহাস গড়ে মেসি-সুয়ারেজরা। সেটি হলো লিগে টানা ৩৯ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ড।

মেসি-সুয়ারেজরা এদিন ছাড়িয়ে যায় রিয়াল সোসিয়েদাদের গড়া টানা ৩৮ ম্যাচে অপরাজিত থাকার রেকর্ডকে। ১৯৭৮-৭৯ এবং ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে অবিস্মরণীয় এই রেকর্ড গড়েছিল রিয়াল সোসিয়েদাদ। এবার ৩৮ বছর আগের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়ল আর্নেস্তো ভালভার্দের দল।

নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে শনিবার ভ্যালেন্সিয়াকে স্বাগত জানায় বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষের বিপক্ষে এদিন পুরো শক্তির দলকেই মাঠে নামান ভালভার্দে। ম্যাচ শুরুর ১১ মিনিটেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। গোলদাতা বার্সেলোনার উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ। লিগে চলতি মৌসুমে এটি তার ২৩তম গোল। লা লিগায় চলতি মৌসুমে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। ছয় গোল বেশি করে তার ওপরে রয়েছেন লিওনেল মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫১ মিনিটে স্যামুয়েল উমতিতি গোল করলে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে বড় ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ার ইঙ্গিত দেয় ভালভার্দের দল। কিন্তু ম্যাচ শেষ হওয়ার তিন মিনিট আগেই দেখা দেয় বিপত্তি। ৮৭ মিনিটে ফাউল করে বসেন ওসমান ডেম্বেলে। পেনাল্টি পায় ভ্যালেন্সিয়া। পেনাল্টির সেই সহজ সুযোগ কাজে লাগাতে মোটেও ভুল করেননি দানি পারেজো। কিন্তু পরের সময়টাতে আর কোনো ভুল করেনি বার্সেলোনা। যে কারণে ২-১ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ভালভার্দের শিষ্যরা।

ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে পুরো সময়টাতেই খেলেছেন দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। কিন্তু কোনো গোল করতে পারেননি এলএম টেন। যদিও ম্যাচে বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করেছিলেন বার্সেলোনার এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। এদিকে ব্রাজিলিয়ান তারকা ফিলিপে কোটিনহো ম্যাচের ৭৯ মিনিট পর্যন্ত খেলেছেন। নিজে গোল করতে না পারলেও ভ্যালেন্সিয়ার জালে দুইবার জড়ানো বলে ভূমিকা ছিল তার।

ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে জেতায় শিরোপার আরও কাছাকাছি চলে এসেছে বার্সেলোনা। লিগ শিরোপা উঁচিয়ে ধরার জন্য কাতালানদের এখনও সাত পয়েন্ট প্রয়োজন। ৩২ ম্যাচ থেকে শীর্ষে থাকা বার্সার সংগ্রহে ৮২ পয়েন্ট। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ আর ভ্যালেন্সিয়ার পয়েন্ট যথাক্রমে ৬৮ ও ৬৫। চারে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের দখলে ৬৪ পয়েন্ট।