বার্সাকে হারিয়ে ফোয়ারায় ঝাঁপ, রোমা প্রেসিডেন্টের জরিমানা


ফোয়ারায় ঝাঁপ দিচ্ছেন রোমা প্রেসিডেন্ট (প্রথম ছবি), বার্সেলোনার বিপক্ষে অসাধারণ কামব্যাকের পর উল্লসিত খেলোয়াড়রা (দ্বিতীয় ছবি)।
চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে বার্সেলোনার বিপক্ষে ৪-১ গোলে হারের পর সেমিফাইনালে উঠতে ‘অসম্ভব’ কিছুই করতে হতো এসএ রোমাকে। দ্বিতীয় লেগে শুধু জয়ই না, প্রয়োজন ছিল কঠিন সমীকরণেরও। ম্যাচের বয়স যখন মাত্র ছয় মিনিট তখনই স্বাগতিক সমর্থকদের উচ্ছ্বাসের জোয়ারে ভাসান এডিন জিকো। এরপর একে একে আরও দুই গোল আদায় করে নেয় রোমা।

স্বাগতিক সমর্থকদের প্রত্যাশার পারদ বাড়তে থাকে। কেননা আর একটি মাত্র গোল করতে পারলেই যে সেমিফাইনালের টিকেট কাটবে রোমা। ম্যাচ শেষ হওয়ার ৮ মিনিট আগে দারুণ এক গোল করে সেই কাজটাও করে দেখান রোমার রক্ষণসৈনিক কোস্টাস মানোলাস। তার গোলের সঙ্গে সঙ্গে উৎসবে যোগ দেন ডাগআউটের সবাই। বাঁধভাঙা উল্লাসে মাতেন খেলোয়াড়রা। রোমের অলিম্পিক স্টেডিয়ামের গর্জনে তখন নিজের কথাই নিজে শোনা দায়!

দুর্দান্তরূপে ফিরে আসা, সবকিছু ছাপিয়ে নতুন করে ইতিহাস লেখা স্টেডিয়ামের বাইরে অবস্থান করা রোমার সমর্থকরাও তখন উদ্দাম উদযাপনে ব্যস্ত। তাদের সঙ্গী হন ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট জেমস পাল্লোত্তাও। বাঁধভাঙা উল্লাসের একপর্যায়ে রাস্তার পাশের ফোয়ারায় ঝাঁপও দেন রোমা প্রেসিডেন্ট, যা শহরের নিয়ম অনুযায়ী ‘অপরাধ’।

ওই ‘অপরাধে’ অবশ্য জেমসকে ৪৫০ ইউরো জরিমানাও গুনতে হয়েছে। পাশাপাশি সিটি মেয়রের কাছে ক্ষমাও চাইতে হয়েছে ৬০ বছর বয়সী এই ক্রীড়া সংগঠককে। শুধু তা-ই নয়, জরিমানার পাশাপাশি ওই ফোয়ারার যত্ন নেওয়ার জন্য দুই লাখ ইউরো অনুদানও দিয়েছেন রোমার প্রেসিডেন্ট জেমস পাল্লোত্তা।