মেডিস্টারে রোগী হত্যার অভিযোগে ভাঙচুর, গাইনি ডাক্তার অমল সহ আটক ৫


বিশেষ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ শহরের সলিমুল্লাহ সড়কে বেসরকারী হাসপাতাল মেডিস্টার জেনারেল হাসপাতালে নারী রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে স্বজনেরা। তাদের অভিযোগ ডাক্তারের অবহেলায় ওই রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজন গাইনি ডাক্তার সহ ৫জনকে আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার (৮ মার্চ) দুপুর ১টায় ওই ঘটনা ঘটে। মৃত রোগীর নাম ঝুমা আক্তার (২৪)। সে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার উত্তর মাসদাইরের গাবতলী এলাকার কামরুল হাসান শরীফের স্ত্রী।

রোগীর দেবর শাহেদ আহমেদ জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় সন্তান প্রসবের জন্য রোগীকে অস্ত্রোপচারের পর জরায়ুর সমস্যার কারণে তাকে পর পর আরো তিনবার অস্ত্রোপচার করা হয়। ওই সময়েই ঝুমার মৃত্যু ঘটে। কিন্তু পরে ৪ ব্যাগ রক্তও আনায় ডাক্তার।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, আমরা বার বার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বলেছি যদি আপনারা না পারেন রোগীকে ছেড়ে দিন আমরা ঢাকা নিয়ে যাই। তারপরও তাকে হাসপাতালে রেখে তারা ভুল চিকিৎসা করে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার দুপুর ১টায় পর আমাদেরকে জানানো হয়েছে যে রোগী মারা গেছে।

মৃত্যুর পর স্বজনেরা হাসপাতালের ভেতরে বিভিন্ন স্থানে ভাঙচুর করে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মো. জয়নাল জানান, পরিবারের অভিযোগ ঝুমাকে হত্যা করা হয়েছে। ওই অভিযোগে অস্ত্রোপচার করা গাইনি ডাক্তার অমল কুমার সহ ৫জনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

ডা: অমল কুমার দাবী করেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরনের কারণে রোগী মারা গেছে।