‘আমার সবসময়ের আইডল রোনালদিনহো’ – ফিলিপে কোটিনহো


Coutinho 11 01 18 98560094

বার্সার খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোটিনহো।

 

দলবদলের ইতিহাসে ‍তৃতীয় সর্বোচ্চ দামী ফুটবলার হিসেবে বার্সেলোনায় যোগ দিলেন ফিলিপে কোটিনহো। স্বপ্নের ঠিকানায় জায়গা করে নেওয়ার পর থেকেই রোমাঞ্চিত সাবেক লিভারপুলের এই ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার।

ন্যু ক্যাম্পে যাওয়ার পর বার্সেলোনার অফিসিয়াল ক্লাব মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন ২৫ বছরের এই তরুণ। যেখানে উঠে এসেছে তার ব্যক্তিগত জীবনের অনেক অজানা তথ্য। তবে তার জীবনের শুরু থেকেই আদর্শ হিসেবে মানতেন রোনালদিনহোকে।

এ প্রসঙ্গে কোটনহো বলেন, ‘ব্রাজিলে আমরা রোমারিও, রোনালদো এবং রিভালদোদেরকে আদর্শ হিসেবেই মানি। তবে রোনালদিনহো ছিলেন আমার সবসময়ের আদর্শ।’

তবে বার্সেলোনায় কেন যোগ দিলেন? এমন প্রশ্নের জবাবে কোটিনহো বলেন, ‘আমি যখন খুব ছোট তখন থেকেই বার্সেলোনার জার্সি পড়ার স্বপ্ন দেখা শুরু করি। এর কারণ এই ক্লাবের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য।’

সিনিয়র ক্যারিয়ারে প্রায় এক দশক পার করে দিলেন কোটিনহো। যার সূচনা হয়েছিল ইন্টার মিলানে। সেই ক্লাব থেকেই ২০১২ সালে ধারে এস্পানিওলের হয়ে স্প্যানিশ লা লিগায় খেলতে গিয়েছিলেন কোটিনহো। তখন বার্সেলোনায় পাঁচ-ছয় মাস ছিলেন তিনি। সেই সময় থেকে যেন কাতালান ক্লাবটির প্রতি তার ভালোবাসা বেড়ে যায় আরও। সেই শহর সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বার্সেলোনায় আমি পাঁচ-ছয় মাস ছিলাম। এই শহরটা আমার অনেক পছন্দের। আমার হোমটাউন রিও ডি জেনেরিওর সঙ্গে দারুণ মিল।’

গান, খাবার, ট্যাটুর সঙ্গে দারুণ সখ্যতা ফিলিপে কোটিনহোর। ভালোবাসেন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতেও। এক সময় মা-বাবার নামেই সবকিছুর শুরু করতেন তিনি। তবে বিয়ের পর থেকে সেই জায়গাটা দখল করে নেন তার স্ত্রী। এ প্রসঙ্গে কোটিনহো খুব সহজেই বলেন, ‘শুরুটা আমি মা-বাবার নাম নিয়েই করতাম। তবে বিয়ের পর থেকে স্ত্রীর নাম নেই। আমার মেয়ের একটা বড় ট্যাটু আছে, এটা আমার কাছে অনেক কিছুই।’

স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসেন কোটিনহো। তবে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলের এই প্রতিভাবান তারকা কিন্তু এখনো কাতালান ভাষাটা খুব ভালো করে শিখেননি!


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*