শীতকালীন অলিম্পিকে দল পাঠাচ্ছে উত্তর কোরিয়া


দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে অনুষ্ঠেয় ২০১৮ সালের শীতকালীন অলিম্পিকে প্রতিনিধিদল পাঠাবে উত্তর কোরিয়া।

৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়।

বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, সোমবার দুই বছর পর দেশ দুটির মধ্যে প্রথমবারের মতো উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হয়। বৈঠকের পর উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়, সিউলের অলিম্পিকে অন্যদের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার খেলোয়াড় ও সমর্থকরাও অন্তর্ভুক্ত হবে।

দক্ষিণ কোরিয়া বলেছে, দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য তারা সোমবারের বৈঠককে কাজে লাগাবেন।

সিউলের সহ-একত্রীকরণ মন্ত্রী  চুন হেই-সুং সাংবাদিকদের জানান, শীতকালীন অলিম্পিকে উত্তর কোরিয়া উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল পাঠাবে। এই প্রতিনিধি দলে থাকবে জাতীয় অলিম্পিক কমিটির প্রতিনিধি, সমর্থক, খেলোয়াড়, তায়েকোন্দো দল, পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিক।

২০১৫ সালে সর্বশেষ আলোচনার পর দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়। উত্তর কোরিয়া রকেট লাঞ্চার ও পারমাণবিক বোমা পরীক্ষা চালালে সম্পর্ক একেবারে ভেঙে যায়।

ওই ঘটনার প্রতিবাদে যৌথ অর্থনৈতিক প্রকল্প কায়েসং ইন্ডাস্টিয়াল কমপ্লেক্স থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে দক্ষিণ কোরিয়া। শুধু তাই নয়, এর পর থেকে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায় এবং টেলিফোন সংযোগও বিচ্ছিন্ন করা হয়।

পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয় যখন উত্তর কোরিয়া ধারাবাহিকভাবে পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি চালু রাখে।

১৯৪৮ সালে দুই কোরিয়া বিভক্ত হওয়ার পর থেকে দেশ দুটিতে একত্রীকরণ মন্ত্রণালয় খোলা হয়। এর কাজ হলো দুই কোরিয়ার মধ্যে সম্পর্ক জোরদারে কাজ করা।