হেলমেট পরে বোলিং!


ব্যাটসম্যানরা প্যাড, গ্লাভস, হেলমেট ছাড়াও একাধিক আভ্যন্তরীণ আবরনি পরে মাঠে নামেন। এছাড়াও স্ট্যাম্পের কাছে দাঁড়ানোর সময় উইকেটরক্ষক বা ক্লোজ-ইন ফিল্ডাররা বলের আঘাত থেকে মাথা বাঁচাতে হেলমেট পরেন। এমনকি আম্পায়াররাও বলের আঘাত থেকে নিজেদের রক্ষা করতে ব্যবহার করছেন বিশেষ ধরনের গার্ড। ক্রিকেট মাঠে এগুলো পরিচিত দৃশ্য হলেও এবার দেখা গেল ভিন্ন এক দৃশ্য। বলের আঘাত থেকে বাঁচতে সুরক্ষাকবচ হিসেবে হেলমেট ব্যবহার করতে দেখা গেল বোলারকে।

ক্রিকেট মাঠে নিরাপত্তা নিয়ে ঝুঁকি কেউই নিতে চান না। কিছুদিন আগে ইংল্যান্ডের ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি টি-টোয়েন্টিতে মাথায় বলের আঘাত পান ইংলিশ পেসার লুক ফ্লেচার। অনাকাঙ্ক্ষিত আঘাত থেকে বোলারদের মাথা বাঁচাতেই বিশেষ এক হেলমেট নিয়ে এলেন নিউজিল্যান্ডের বোলার ওয়ারেন বার্নস। সেটার ব্যবহারও করেছেন ইতিমধ্যে। নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটের আসর সুপার স্ম্যাশ টি-টোয়েন্টি ট্রফিতে হেলমেট পরে বোলিং করেছেন তিনি।

হ্যামিল্টনে নর্দান ডিস্ট্রিক্টসের বিপক্ষে বল করার সময় হেলমেট পরে বোলিং করতে দেখা গেছে বার্নসকে। এটা দেখতে অনেকটাই বেসবল আম্পায়ার ও সাইক্লিস্টদের হেলমেটের মতো। বিশেষ ধরণের এই হেলমেট হেডগিয়ার নামেও পরিচিত। এই হেডগিয়ার অবশ্য পুরোপুরি হেলমেটের আদলে তৈরি নয়। তবে মাথা ও মুখ একসঙ্গে রক্ষা করবে এই হেলমেটটি।

ম্যাচ শেষে বার্নস জানান, এই হেডগিয়ার পরে বল করতে কোনও সমস্যা হয়নি তার। সেই ম্যাচে ৩৩ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন এই পেসার। জানা গেছে, ওটেগো ভোল্টসের বোলার ওয়ারেন বার্নস ও কোচ রব ওয়াল্টার মিলে এই হেলমেট আবিষ্কার করেছেন। দুজন মিলে অভিনব এই হেডগিয়ারের নকশা করেছেন।