শরণার্থী ঠেকাতে সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করল সুইডেন


Untitled-1_2

যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশগুলোর মরিয়া শরণার্থীদের আশ্রয়দানে এতোদিন উদারতা দেখালেও এবার এ প্রেক্ষাপটে অবস্থান পরির্বতন করেছে সুইডেন। ব্যাপকহারে অপ্রত্যাশিত শরর্ণার্থী প্রবেশ নিয়ন্ত্রণে বৃহস্পতিবার সুইডেন সরকার সীমান্ত এলাকায় কড়াকড়ি আরোপ করেছে।
উত্তর আমেরিকা এবং উত্তর আটলান্টিক এলাকায় বসবসাকারী নরডিক জাতী বিশেষ করে যারা নিজেদের অধিক মানবিকবোধ সম্পন্ন বলে দাবি করে, তারা মাথাপিছু যেহারে সুইডেনে রাজনৈতিক আশ্রয় দাবি করে তা ইউরোপের অন্য দেশের চেয়ে বেশি। সুইডিশ কর্তপক্ষ সম্ভাব্য যে হিসাব দাঁড় করিয়েছে তাতে এ বছর ১ লাখ ৯০ হাজার লোক সুইডেনে পাড়ি জমাবে। যা আগের বছরের চেয়ে দ্বিগুণ এবং যা ১৯৯০ সালের পর সর্বোচ্চ।
সুইডেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এনডার্স ইজিম্যান বলেন, ‘‘উল্লেখযোগ্য পরিমাণ শরর্ণার্থী সুইডেনে প্রবেশ করছে। অভিবাসন অফিস এ কারণে অতিরিক্তি চাপের মধ্যে রয়েছে। পুলিশ বলছে, এটা সরকারের নির্দেশনার উপর হুমকি হয়ে দেখা দিচ্ছে।’’
এদিকে, সম্প্রতি শরণার্থী সংকট মোকাবলোয় ইউরোপীয় এবং আফ্রিকান নেতাদের দ্বীপরাষ্ট্র মাল্টার ভেলেটায় একত্রিত হতে বাধ্য করেছিল।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা বৃহম্পতিবার তাদের আফ্রিকান সহযোগীদের ২.২ বিলিয়ন ডলারের জরুরি সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছে। যাতে ভুমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে আসা মরিয়া শরণার্থীদের দমানো যায়।
এ বছর ৭ লাখেরও বেশি লোক ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে অবস্থান নিয়েছে। সুইডেন এ ক্ষেত্রে একটি উদার দেশ। যে দেশ যুদ্ধ বিস্তস্ত সিরিয়া, ইরাক, আফগানিস্তান এবং বিভিন্ন আফ্রিকান দেশ থেকে অন্যদেশ পাড়ি দেওয়ার জন্য মরিয়া শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়ে আসছিল।