ট্রাম্প মানসিক বিকারগ্রস্ত: কিম জং উন


donald-trump-kim-jong-1855628779

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ‘মানসিক বিকারগ্রস্ত’ বলে মন্তব্য করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। একই সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে সঠিক পথেই আছেন বলে দাবি তাঁর।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ’র মাধ্যমে এক দুর্লভ ব্যক্তিগত বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের জন্য তাকে ‘চড়া মূল্য দিতে হবে’ বলে হুমকি দেওয়া হয়েছে বিবৃতিতে।

৭২তম সাধারণ অধিবেশনের বক্তব্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘যদি উত্তর কেরিয়া যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্রদেশগুলো ওপর কোনো ধরণের অনাকাঙ্কিত ঘটনা ঘটায় তবে দেশটিকে ‘পুরোপুরি ধ্বংস’ করে দেওয়া হবে।’

এসময় তিনি উত্তর কোরীয় প্রেসিডেন্টকে ‘রকেট ম্যান’ ‘আত্মঘাতি মিশনে’ নেমেছে বলে বিদ্রুপ করেন।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশ দুটির মধ্যে কথার লড়াই থামছে না। একই সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাও চলছে দুর্দান্ত গতিতে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের বক্তব্য ভয় দেখানো বা থামানোর বদলে আমাকে আত্মপ্রত্যয়ী করে তুলে। আমি মনে করি আমি সঠিক পথে আছি। শেষ পর্যন্ত আমার এই পথেই চলা উচিত।’

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ট্রাম্পের বক্তব্যে ইতিহাসের সবচেয়ে হিংস্র যুদ্ধের ঘোষণা লুকায়িত। উত্তর কোরিয়ার অস্তিত্বকে অস্বীকার করে বিশ্ববাসীর কাছে আমাকে এবং আমার দেশকে অপমান করা হয়েছে।’

পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ট্রাম্পের বক্তব্যের জন্য তাঁকে মূল্য চুকাতে হবে বলে হুমকি দেওয়া হয় বিবৃতিতে।

বিবৃতিটি শেষ করা হয় এ বলে, ‘অবশ্যই এবং নিশ্চিতভাবে যুক্তরাষ্ট্রের মানসিকভাবে অগোছালো ভীমরতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে শাস্তি দেওয়া হবে আগুনের মাধ্যমে।’

এ বিবৃতির তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে জাপান সরকারের পক্ষ থেকে।

জাপানের প্রধান মন্ত্রী পরিষদ সচিব শুক্রবার একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার মন্তব্য এবং আচরণ আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার জন্য হুমকি। আর এ হুমকি কখনও গ্রহণযোগ্য নয়।’

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের বক্তব্যকে ‘কুকুরের ঘেউ ঘেউ’ বলে মন্তব্য করেছিলেন জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দেওয়ার জন্য নিউইয়র্কে অবস্থান করা উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ইয়ং হো।

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরও জোরদার করতে নতুন আদেশে সই করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্প বলেন, অনেক দিন ধরে উত্তর কোরিয়া আন্তর্জাতিক আর্থিক ব্যবস্থার অপব্যবহারের সুযোগ পেয়েছে। আন্তর্জাতিক আর্থিক ব্যবস্থার সুযোগ নিয়ে উত্তর কোরিয়া পরমাণু অস্ত্র এবং ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিতে অর্থব্যয় করছে।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই লাভরভ জাতিসংঘকে সতর্ক করে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধংদেহী মনোভাব রয়েছে।

চীনের পররাষ্ট্র্রমন্ত্রী ওয়াং ই বিপজ্জনক পথে না যেতে পিয়ংইয়ংয়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে গতকাল তিনি বলেন, উত্তর বা দক্ষিণ কোনো কোরিয়াতেই পরমাণু কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়া উচিত না।