সাকিব-তামিমের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় বাংলাদেশ


247518_115

দলীয় ১০ রানেই নেই তিন উইকেট। ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েও দ্রুতই সাজঘরে ফেরেন ওপেনার সৌম্য সরকার। এক ওভার পর একই পথে হাঁটেন ইমরুল কায়েস ও সাব্বির রহমান। ধুঁকছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে ওপেনার তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় রয়েছে বাংলাদেশ। চতুর্থ উইকেটে ৮৫ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক বিপদ সামাল দিয়েছেন তামিম-সাকিব।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে এদিন টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মুশফিকুর রহিম। অধিনায়কের সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণ করতে শুরুটা দেখে শুনেই করেছিলেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য। জশ হ্যাজলউডের করা প্রথম ওভার থেকে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাঁড়ায় পাঁচ রান। ওভারের শেষ বলে চার হাঁকান সৌম্য। দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলেও চার মেরে ভালো শুরুর ইঙ্গিত দেন বাঁ-হাতি এই ওপেনার।

কিন্তু প্যাট কামিন্সের করা ওভারের শেষ বলে পিটার হ্যান্ডসকম্বের হাতে ধরা পড়লেন তিনি। আউট হওয়ার আগে সৌম্যর সংগ্রহ আট বলে আট রান। ইনিংসের চতুর্থ ওভারের পঞ্চম বলে রানের খাতা না খুলেই উইকেটেরক্ষক ম্যাথু ওয়েডের হাতে ধরা পড়েন তিন নম্বরে নামা ইমরুল। পরের বলে নতুন ব্যাটসম্যান সাব্বিরও পথ ধরলেন সাজঘরের। প্যাট কামিন্সের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। তিনটি উইকেটই নিয়েছেন কামিন্স।

দলীয় ১০ রানেই তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়া বাংলাদেশের হাল ধরেন ওপেনার তামিম ও সাকিব। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির আগে দুজনে মিলে গড়ে ৮৬ রানের জুটি। দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় তিন উইকেটে ৯৬ রান। সাকিব অপরাজিত আছেন ৪৮ রানে, চার মেরেছেন সাতটি। আর তামিমের সংগ্রহ দুই ছক্কা ও এক চারে ৩১ রান। দু’জনেরই এটা ৫০ তম টেস্ট ম্যাচ। মাইলফলকের ম্যাচেই দলের গুরু দায়িত্ব এই দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের উপর।