অভিষেকেই বুঝিয়ে দিলেন নেইমার কেন বিশ্বের দামি ফুটবলার


neymar-14-08-17-1442156395

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে প্যারিস সেন্ট জার্মেইর (পিএসজি) হয়ে খেলতে পারেননি নেইমার। দলবদলের জটিলতায় সেই ম্যাচে দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন এই ব্রাজিলিয়ান। তবে রোববার গুইগ্যাম্পের বিপক্ষে তার খেলাটা যে নিশ্চিত তা আগে থেকেই অনুমান করে নেন সাবেক বার্সা তারকার ভক্ত-অনুরাগীরা।

এই ম্যাচ নিয়েই তাই সমর্থকদের মধ্যে তৈরি হয় বাড়তি উন্মাদনা! ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে কেনা নেইমারের অভিষেক ম্যাচ বলে কথা। সমর্থকদের এই উন্মাদনা আর উচ্ছ্বাস বুঝতে বাকি ছিল না পিএসজির কোচ উনাই এমেরিরও। তাই তো ম্যাচের  শুরু থেকেই নেইমারকে খেলার সুযোগ করে দেন তিনি।

শুরু থেকেই দেখা যেতে থাকে নেইমারের ঝলক। কিন্তু কিছুতেই যেন গোলের দেখা পাচ্ছিলেন না সাবেক সান্তোস তারকা। তবে ৩৪ মিনিটেই আসে দারুণ সুযোগ। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার, নেইমারের করা দুর্দান্ত হেড গোল পোস্ট থেকে ফিরে আসে। হতাশ না হয়ে নেইমার অবশ্য নিজের সেরাটা ঢেলে দিয়েই খেলা চালিয়ে যান।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই অবশ্য আত্নঘাতী গোলে পিএসজিকে এগিয়ে দেয় স্বাগতিক গুইগ্যাম্প। জর্ডান ইকোকোর ভুলে নিজেদের জালেই বল পাঠিয়ে দেয়। তবে এখানেও ভূমিকা ছিল নেইমারের। এডিনসন কাভানিকে যে নেইমারই পাস করতে চান।

দ্বিতীয়ার্ধের ৬২ মিনিটে অবশ্য কাভানির সৌজন্যে গোল ব্যবধান দ্বিগুন করে পিএসজি। এই গোলের অ্যাসিস্টও নেইমার। তারপরও নেইমারের গোল দেখার জন্য উন্মুখ হয়েছিল সফরকারী সমর্থকরা।

নেইমার অবশ্য হতাশ করেননি তাদের। তবে ভক্ত-অনুরাগীদের সেজন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে ৮২ মিনিট পর্যন্ত। ম্যাচ শেষের আট মিনিট আগেই বহুল কাঙ্খিত সেই গোলের দেখা পান নেইমার। এরপর আর কোনো গোল না হলে পিএসজি অবশ্য ৩-০ ব্যবধানের অনায়াস জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে।

অভিষেক ম্যাচের তিন গোলের সবকটিতেই নেইমারের ভূমিকা! এ যেন, এলাম দেখলাম জয় করার মতোই গল্প! শুরুতেই এমন মনোমুগ্ধকর পারফরম্যান্স উপহার দেওয়া নেইমার যে বহুদূর যাবেন সেটা এখন অনুমিতই।

গুইগ্যাম্পের বিপক্ষে জয় লিগে পিএসজির টানা দুই জয়। এর ফলে গত মৌসুমে মোনাকোর কাছে হারানো শিরোপা পুনরুদ্ধারের ইঙ্গিতটাও বেশ ভালোবাবে দিয়ে রাখলো উনাই এমেরির শিষ্যরা।