মিরপুরে শুভসূচনার প্রতীক্ষায় বাংলাদেশ


গত কিছুদিন ধরে জেঁকে বসা নিরাপত্তাজনিত অশুভ শঙ্কাকে দুর করে আজ আবারো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশে। দীর্ঘ ৪ মাস পর আবারো ওয়ানডে সিরিজ খেলতে যাওয়া বাংলাদেশ চায় যেকোনো উপায়ে শুরুটা ভালো করতে।

এই সিরিজে প্রাধান্য বিস্তার করে জিততে চায় বাংলাদেশ- দিন কয়েক আগে সহঅধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বলা কথাটা শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে প্রথমে সরাসরি সমর্থন না করলেও পরবর্তীতে সাকিবকে নিয়ে বলা কিছু কথাতেই মাশরাফিও সেই গোপন ইচ্ছেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন, ‘সাকিব তো বাংলাদেশ দলে আসার পর থেকেই সবসময় একটা নির্ভরতার নাম ছিল, এখনও আছে। শেষ কয়েকটা সিরিজে ওর উপর থেকে চাপ অনেক কমেছে। সবসময় ওর কাছে চাইলে তো হয় না। এখন চাপ ওর একটু কমেছে। সাকিবের দিকে শুধু অধিনায়ক হিসেবে আমি নই, গোটা বাংলাদেশই তাকিয়ে থাকে। অধিনায়ক হিসেবে আমি আশা করি সাকিব পর্যন্ত ব্যাটিং না আসুক।’

ছবিঃ শুক্রবার জিম্বাবুয়ের অনুশীলনের আগে মিরপুর স্টেডিয়ামে র‍্যাবের ডগ স্কোয়াডের তল্লাশি।

তার মানে জয়ের জন্য সাকিব আল হাসান পর্যন্ত ব্যাটিং না পৌঁছালেই খুশি হবেন অধিনায়ক মাশরাফি। আর সেভাবে জয় পেলে যে তা ‘প্রাধান্য বিস্তার’ করে অর্জিত জয়ই হবে, সেটা তো সহজ সমীকরণ। আর সর্বশেষ সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শেষ দুই ওয়ানডেতে দাপুটে জয় এনে দিতে যার ব্যাটিংয়ের দারুণ ভূমিকা ছিল গুরূত্বপুর্ণ, সেই সৌম্য সরকারকে এবার ইনজুরির কারণে পাচ্ছে না বাংলাদেশ।

অধিনায়ক মাশরাফির কণ্ঠে সৌম্যের জন্যেও ঝরলো দারুণ প্রশংসা, ‘সৌম্যকে পুরো দলই মিস করবে। শুধু ভালো ক্রিকেটারই নয় সে, দারুণ টিমমেটও। আমরা অবশ্যই ওকে মিস করব। খুবই রোমাঞ্চকর ক্রিকেটার। শেষ ম্যাচেও ৮০-র বেশি করেছে। ওর মতো ক্রিকেটারকে মিস করা দলের জন্য ভালো কিছু নয়। তবে এটা একটা ভালো সুযোগ অন্যদের জন্য।’

ইনজুরির কারণে এই সফরে অধিনায়ক পাচ্ছেন না দুই নির্ভরযোগ্য পেসার তাসকিন আহমেদ ও রুবেল হোসেনকেও। কিন্তু সৌম্য, রুবেলদের বদলে যাদেরকে পাচ্ছেন, তাদের ওপরই আস্থা রাখছেন মাশরাফি, ‘লিটন খেলেছে আগে, ইমরুল ফিরেছে। ওদের জন্য সুযোগ নিজেকে মেলে ধরার। এখনও দল সাজানো হয়নি। সৌম্যকে পুরো দলই মিস করবে। তবে এসব হতে পারেই। অধিনায়ক হিসেবে বলছি, যারা আছে তারাও ভালো করবে।’

দুপুর ১টা থেকে শুরু হতে চাওয়া দিবারাত্রির এই ম্যাচের ওপরেই অনেকাংশেই নির্ভর করবে এই সিরিজের গতিপ্রকৃতি। মাশরাফিদের শুভসূচনার প্রতীক্ষায় আর প্রার্থনায় সারা বাংলাদেশ।