৪৬ বছরের রেকর্ড ভেঙে রোনালদোর নতুন ইতিহাস


 

cristiano-ronaldo-18-may

কোথায় থামবেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো? তার উত্তর সময়ের হাতে। তবে সিআর সেভেন যখনই থামুন না কেন ইতোমধ্যেই নিজেকে নিয়ে গেছেন ইতিহাসের সোনালী পাতায়। বুধবারও নতুন এক রেকর্ড গড়ে নিজের জাত চেনালেন রিয়াল মাদ্রিদের এই পর্তুগিজ সুপারস্টার।

সেল্টা ভিগোর বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে একাই দুই গোল করলেন তিনি। ম্যাচ শুরুর ১০ মিনিটে রোনালদোর গোলেই প্রথম এগিয়ে যায় রিয়াল মাদ্রিদ। আর এই গোলের সৌজন্যেই নতুন এক মাইলফলক স্পর্শ করেন সিআর সেভেন। ইংল্যান্ডের সাবেক তারকা ফুটবলার জিমি গ্রিভসকে ছাড়িয়ে ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার অবিস্মরণীয় রেকর্ড গড়লেন রোনালদো।

১৯৫৭ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত খেলে ৩৬৬ গোল করে এই রেকর্ড গড়েছিলেন জিমি গ্রিভস। সাড়ে চার দশকেরও বেশি সময় এই রেকর্ড নিজের করে রেখেছিলেন এই ইংলিশ কিংবদন্তি। অবশেষে ১৭ মে বুধবার তার গড়া ৪৬ বছরের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। সেল্টার বিপক্ষে ৪৮ মিনিটে দলের দ্বিতীয় গোলটিও করেন তিনি। ২৯ ম্যাচ থেকে চলতি মৌসুমে যা তার ২৪তম গোল। আর সর্বমোট ৩৬৮তম লিগ গোল। তবে গ্রিভসের চেয়ে ৬৮ ম্যাচ কম খেলেছেন রোনালদো।

শুরুটা করেছিলেন ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগের বাইরের ক্লাব স্পোর্টিং লিসবনের জার্সিতে। যেখানে তিনটি গোল করেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কিন্তু ২০০৩ সালেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে নতুন করে ঠিকানা গড়েন তিনি। অসাধারণ এই গল্পের শুরুটাও সেখানে। ইংলিশ ফুটবলের সবচেয়ে সফল ক্লাবটির হয়ে ১৯৬ লিগ ম্যাচে ৮৪ গোল করে পাদপ্রদীপের আলোয় উঠে আসেন পর্তুগিজ সুপারস্টার। ২০০৯ সালে যোগ দেন লা লিগার জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে। লস ব্ল্যাঙ্কোসদের হয়ে ২৬৪ ম্যাচ খেলে রোনালদো করেছেন ২৮৪ গোল। আর তাতেই ছাড়িয়ে দেন গ্রিভসকে।

জিমি গ্রিভস ১৯৫৭ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত খেলে ৩৬৬ গোল করেছিলেন। তার শুরুটা হয়েছিল চেলসির জার্সিতে। ব্লুজদের হয়ে ১৫৭ ম্যাচ খেলে ১২৪ গোল করেছিলেন তিনি। ১৯৬১ সালে যোগ দেন এসি মিলানে। কিন্তু খুব বেশিদিন থাকতে পারেননি সিরি’এ লিগে। মিলানের হয়ে খেলেছেন মাত্র ১২ ম্যাচ। গোলসংখ্যা নয়টি। এরপর টটেনহ্যাম হটস্পারের হয়ে আবারও প্রিমিয়ার লিগে। স্পার্শদের হয়ে ৩২১ ম্যাচ খেলে সাবেক ইংলিশ ফুটবলার প্রতিপক্ষের জালে বল জাড়ন ২২০বার। এরপর ওয়েস্ট হামের হয়ে ৩৮ ম্যাচ খেলে আরও ১৩ গোল করেন জিমি গ্রিভস।