চিকিৎসার জন্য লন্ডন যাচ্ছেন খালেদা জিয়া


1436331867_78066

আগামী মঙ্গলবার লন্ডন যেতে পারেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সেখানে চোখ ও পায়ের চিকিৎসা করাবেন তিনি। একই সঙ্গে লন্ডনে অবস্থানরত বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে দল পুনর্গঠন নিয়েও গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা সারবেন তিনি। মালয়েশিয়া থেকে প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী ও দুই মেয়েও লন্ডন যেতে পারেন। সেখানে বড় ছেলে, দুই পুত্রবধূ ও তিন নাতনির সঙ্গে আসন্ন ঈদুল আজহা উদ্যাপন করতে পারেন খালেদা জিয়া।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান গতকাল শুক্রবার বলেন, ম্যাডাম ১৫ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) লন্ডন যাবেন বলে শুনেছি। সেখানে চোখ ও পায়ের চিকিৎসা করাবেন তিনি। ঈদুল আজহা লন্ডনেই কাটাবেন কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ম্যাডামের দুটি চিকিৎসাই খুব গুরুত্বপূর্ণ। এতে কেমন সময় লাগবে তার ওপর নির্ভর করছে তার ঈদের আগে ফেরা না ফেরার বিষয়টি।

চোখের চিকিৎসার জন্য গত মাসে লন্ডনে যাওয়ার কথা ছিল খালেদা জিয়ার। এ জন্য ভিসাসহ প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও নানা হিসাব-নিকাশ কষে ওই যাত্রা বিলম্বিত হয়। একাধিক সূত্র বলেছে, যুক্তরাজ্যের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সিডিউল চূড়ান্ত না হওয়ায় সফর পেছানো হয়েছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, চেয়ারপারসন দীর্ঘ দিন পর এবার ছেলে, দুই পুত্রবধূ ও নাতনিদের সঙ্গে ঈদ করতে পারেন।

দলের একাধিক নেতা বলছেন, লন্ডনে চিকিৎসাধীন তারেক রহমানের সঙ্গে খালেদা জিয়া দল পুনর্গঠন ও আগামী জাতীয় কাউন্সিল; ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনসহ দলের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে বেশ কিছু পরিবর্তনের ব্যাপারে আলোচনা করবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি ১৭ সেপ্টেম্বর। এ বিষয়ে তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া জানান, ওই তারিখে খালেদা জিয়ার আদালতে উপস্থিত থাকা বাধ্যতামূলক নয়।