জিম্বাবুয়েকে ‘শক্ত’ প্রতিপক্ষ ভাবছে বিসিবি


bcb-logo

বছরের শেষ দ্বিপক্ষীয় সিরিজে নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে নামবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে স্মরণীয় একটি বছর শেষ করার অপেক্ষায় মাশরাফি বাহিনী।

তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি খেলতে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল ঢাকায় আসছে ২ নভেম্বর।

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট তার সেরা সময়ই পার করছে। অন্যদিকে জিম্বাবুয়ে দলও আছে খেলার মধ্যেই। সম্প্রতি জিম্বাবুয়ে নিজেদের মাটিতে আইসিসি সহযোগী দেশ আফগানিস্তানের কাছে হেরেছে ওয়ানডে সিরিজ। সে হিসাবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজটা কঠিন হওয়ার কথা না হলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিব) তাদেরকে শক্ত প্রতিপক্ষই ভাবছে।

আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজের গুরুত্ব প্রসঙ্গে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ বুধবার মিরপুরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘হোমে আমরা ভালো ক্রিকেট খেলছি। বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে ফর্মটা ধরে রাখা। জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর আমরা টি-২০ বিশ্বকাপ খেলতে যাব। জিম্বাবুয়ের সঙ্গে টি-২০ও আছে। এ ছাড়া বিপিএল আছে। বিশ্বকাপের আগে এগুলো গুরুত্বপূর্ণ। আসলে প্রতিটা সিরিজই খুব গুরুত্বপূর্ণ। তাই জিম্বাবুয়ে সিরিজসহ প্রতিটি সিরিজই আমরা গুরুত্ব দিয়ে দেখি।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজের জন্য ১৮ সদস্যের প্রাথমিক বাংলাদেশ দল ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছে বিসিবি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হোমে খেলার সুবিধা সব সময়ই আছে। এ মুহূর্তে ১৮ জনের দল আমরা বোর্ডে জমা দিয়েছি। বৃহস্পতিবার থেকে অনুশীলন শুরু হবে। টিমে সম্ভব্য সেরা কম্বিনেশন করার চেষ্টা করেছি। যেহেতু জিম্বাবুয়ের সঙ্গে খেলা, প্রতিপক্ষকে মাথায় রেখেই দল করা হয়েছে। টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডের প্রাথমিক দল আমরা দিয়ে দিয়েছি।’

তাসকিন, শফিউল অনেকটা সেরে উঠলেও রুবেলের অবস্থা এখনো আশানুরুপ নয় বলে জানান প্রধান নির্বাচক। তিনি বলেন, “ইনজুরি সমস্যা আমরা বিবেচনায় রেখেছি। আপনারা জানেন রুবেল, শফিউল ও তাসকিন ভারত সফরে চোট পেয়ে ফিরেছিল। জাতীয় দলে ফিজিওর কাছ থেকে তাদের স্ট্যাটাস নিয়েছি। তাতে তাসকিন ও শফিউলের সেরে ওঠার গতি রুবেলের চেয়ে বেশি।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ৭ নভেম্বর। জাতীয় দল ক্যাম্প শুরু হবে বৃহস্পতিবার থেকে। বাংলাদেশি সমর্থকদের প্রত্যাশা বছরের শেষটা জয় দিয়ে পুরো বছরটাই স্মরণীয় করে রাখবে মাশরাফি-মুশফিক-সাকিবরা।