গুলশানের বাড়ি হারালেন মওদুদ


modud

রাজধানীর গুলশানে প্রায় সাড়ে তিন বিঘা জমিতে অবস্থিত একটি বাড়ির মালিকানা হারিয়েছেন বিএনপি নেতা মওদুদ আহমেদ। আপিল বিভাগ মওদুদ আহমেদকে এ বাড়ির দখল ছাড়তে নির্দেশ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত রাজউকের করা এক আপিল আবেদন গ্রহণ করে মওদুদু আহমেদের ভাই মনজুর আহমদের নামে মিউটেশন (নামজারি) করার জন্য হাইকোর্টের দেওয়া রায় বাতিল করেছেন সর্বোচ্চ আদালত। একই সঙ্গে বাড়িটির সঙ্গে সম্পৃক্ত দুদকের করা অন্যান্য দুর্নীতি মামলাও বাতিল করেছেন সর্বোচ্চ আদালত।

এ রায় দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি নিজামুল হক।

আদালতে মওদুদ আহমদের পক্ষে তিনি নিজেই ছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদ ও ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। রাজউকের পক্ষে ছিলেন কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী।

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, মনজুর আহমদের নামে নামজারি করতে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বাতিলে রাজউকের করা আপিল মঞ্জুর করেছেন আদালত। তবে দুদকের মামলাটির অভিযোগ আমলে নেওয়া বৈধ বলে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে মওদুদ ও তার ভাই মনজুরের করা আপিল মঞ্জুর করায় মামলাটি বাতিল হয়ে গেছে।

১৯৮৫ সালে উপরাষ্ট্রপতি থাকার সময় ভাইয়ের নামে রাজউকের কাছ থেকে বাড়িটি নিয়েছিলেন মওদুদ আহমদ। এ বাড়ির মালিক ছিলেন অস্ট্রিয়ার কূটনীতিক ইনজে ফ্লাট। মওদুদ আহমদ তিন দশক ধরে ওই বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। সর্বোচ্চ আদালতের এই রায়ের ফলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই নেতাকে ওই বাড়ি হারাতে হচ্ছে।

রাজউক এখন বাড়িটি নিজেদের তত্ত্বাবধানে নেবে বলে জানিয়েছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একরামুল হক টুটুল।