অতি উচ্চাভিলাষী বাজেট, উন্নয়নের আশাও ক্ষীণ: মির্জা ফখরুল


31

২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে অতিউচ্চাভিলাষী বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করার পর অনানুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দলীয় ফোরামে আলোচনার মাধ্যমে পরবর্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে বাজেট সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে।’

তবে অনানুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘সরকার বাজেটে ৭.২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির অর্জনের আশা করছে তা কখনো সম্ভব হবে না। এ্ই বাজেট অতি উচ্চাভিলাষী।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সরকার গত অর্থবছরের বাজেটে জনগণের কাছ থেকে কর নিয়ে যে প্রবৃদ্ধির আশা করেছিল তা পূরণ হয়নি। এবারের প্রস্তাবিত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে প্রবৃদ্ধি অর্জন করা সম্ভব নয়, তাছাড়া উন্নয়নের আশাও ক্ষীণ।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের লক্ষ্য পূরণ না হওয়ার কারণ রয়েছে। বিশেষ করে বেসরকারি বিনিয়োগ নেই। বিশেষ করে কৃষি, শিল্পখাতে তুলনামূলকভাবে বাজেট বরাদ্দ কম হয়েছে।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘প্রস্তাবিত বাজেট অতি উচ্চাভিলাষী। বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে প্রস্তুতি দেখা যাচ্ছে না। এজন্য গত অর্থ বছরের বাজেটের লক্ষমাত্রা পুরণ করতে পারেনি সরকার। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে প্রবৃদ্ধির হার ৭.২ শতাংশ আশা করা হলেও বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান কিভাবে আসবে দিক নির্দেশনা নেই।’

তিনি বলেন, ‘শিক্ষাখাতে বরাদ্ধ হচ্ছে ঠিকই কিন্তু শিক্ষার মান ও দুর্নীতি দমনের ব্যাপারেও সরকারের সঠিক পরিকল্পনা নেই।’

সরকারের বাজেট ঘোষণার অধিকার নেই: শ্রমিক দল আয়োজিত বৃহস্পতিবার বিকালে এক অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘এই সরকারের বাজেট ঘোষণার কোনো অধিকার নেই।’

তিনি বলেন, ‘১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের ফলে মানুষের মাসিক ও দৈনন্দিন খরচ বেড়ে যাবে। তাই এই বাজেট সমর্থন করার কোনো কারণ নেই।’

একই অনুষ্ঠানে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রস্তাবিত এ বাজেটকে ‘মিথ্যা বাজেট’ আখ্যায়িত করেছেন।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য ৩ লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।