বড় কিছুতে নজর বাংলাদেশ কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহের


a_0

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটিই সুখস্মৃতি- কার্ডিফের সেই ওয়ানডে ম্যাচ। তিন ফরম্যাটে ওই একটাই জয়। সেই অস্ট্রেলিয়া কিছুদিন পর বাংলাদেশে আসছে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে। ফরম্যাটটা টেস্টে হলেও এবারের সিরিজে বড় কিছুতে নজর বাংলাদেশ কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহের।

এই সিরিজে নেই কোনো ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি। এ নিয়ে অবশ্য মাথা ব্যথা নেই হাতুরুসিংহের। তার লক্ষ্য এই টেস্ট সিরিজেই এমন কিছু করা যা অস্ট্রেলিয়ার সাথে আগে কখনোই করতে পারেনি বাংলাদেশ।
তবে পথটা যে সহজ নয় লঙ্কান কোচ সেটা ভালো করেই জানেন, ‘দলে যে-ই আসুক বা না আসুক, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। তবে আমি সত্যিই আশাবাদী। এই কন্ডিশন ওদের চ্যালেঞ্জ জানাবে। আমি আশাবাদী যে এমন কিছু আমরা করতে পারব ওদের বিপক্ষে আগে যা কখনো করতে পারিনি।’

তাই বলে এমন বড় একটি দলকে হালকাভাবে নেয়ার কোনো উপায় দেখছেন না তিনি, ‘এটাও বলতে হবে, অস্ট্রেলিয়াকে হালকা ভাবে দেখার কিছু নেই। ক্রিকেটার বের করার সেরা পদ্ধতিটা ওদের আছে। ওদের ‘এ’ দল সম্প্রতি ভারতে দারুণ খেলেছে। কাজেই এই সিরিজ চ্যালেঞ্জিং হবে।’

দারুণ কিছু করে দেখানোর বাসনা থাকলেও অজিদের সামর্থ্য মাথায় রাখতে হচ্ছে বাংলাদেশকে কোচকে। অ্যাশেজ সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার করুণ দশা হলেও তাদের বিপক্ষে খেলা সহজ কিছু নয় বলে মনে করেন হাতুরুসিংহে, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা কখনোই সহজ নয়। ওরা বিশ্বের এক নম্বর দল। ওয়ানডে নেই বলে আমরা শুধুই টেস্ট ক্রিকেট মনোযোগ দিতে পারি।’

গত মাস থেকে শুরু হয়েছে কন্ডিশনিং ক্যাম্প। এর ফলটাও বেশ ভালো এসেছে- জানালেন বাংলাদেশ কোচ, ‘আমার প্রথম লক্ষ্য ছিল ফিটনেস ভালো করা। ক্রিকেটারদের ফুরফুরে করে তোলার প্রয়োজন ছিল। মারিওর সঙ্গে কথা হয়েছে আমার। সে বলেছে, ক্রিকেটারদের নিয়ে কাজ করে সে খুবই খুশি। আমি ক্রিকেটারদের তা জানিয়েছি। খুব ভালো মানসিকতা আছে ক্রিকেটারদের।’

দুটি টেস্ট খেলতে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া। ৯ অক্টোবর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। কয়েকদিনের বিরতির পর ১৭ অক্টোবর মিরপুরের মাঠে গড়াবে দ্বিতীয় টেস্ট।