ব্রিসবেন দেখেই মিরপুরে হচ্ছে বিশ্বমানের ইনডোর


somoy_news_8258

তাহলে ব্রিসবেনের ইনডোরই পাল্টে দিচ্ছে মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ইনডোরের চেহারা। বিশ্বকাপের আগে ওখানে অনুশীলন করেই নাকি বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের উন্নতি হয়েছে। এমনই দাবি বাংলাদেশ দলের প্রধান কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহের।

লঙ্কান কোচের দাবিকে উড়িয়ে দিচ্ছে না বিসিবিও। বরং কোচের এমন দাবি মেনে নিয়ে মিরপুরের ইনডোরকে বিশ্বমানের করে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে বিসিবি। বোর্ড সভা শেষে বুধবার এমনই জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

এ বিষয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমাদের হেড কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহে আমার কাছে এসেছিল। ও চাচ্ছে বিশ্বমানের একটা ইনডোর সুবিধা। কথায় কথায় সে বলেছে অস্ট্রেলিয়ায় আমরা যখন বিশ্বকাপ খেলতে যাই তার আগে ব্রিসবেনের সেন্টার অব এক্সিলেন্সে অনুশীলন করার ফলেই আমাদের পারফরম্যান্সের উন্নতি হয়েছে।’

কোচের এমন কথাকে গুরত্ব দিচ্ছে বিসিবি। নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমরা আজ বোর্ড সভা থেকে ঠিক করেছি ব্রিসবেনের যে সেন্টার অব এক্সিলেন্স আছে ওই সমমানের বা এরচেয়েও যদি ভালো কিছু করতে পারি অর্থাৎ বিশ্বমানের একটা ইনডোর সুবিধা আমরা এখানে এখনই করে ফেলব। একটা বিশ্বমানের ইনডোরে যা যা থাকে যেমন সুইমিং পুল, জিমনেশিয়াম সবই থাকবে।’

মিরপুরের ইনডোর যে উন্নত নয় এ ব্যাপারে চান্দিকা হাতুরুসিংহের সঙ্গে একমত বিসিবি সভাপতিও, ‘তার কথাটা ছিল যে আমাদের এই সুবিধাটা অনেক পুরনো। উইকেটগুলোর বয়স যেহেতু ৮-১০ বছর হয়ে গেছে। এখানে পেস বোলিংয়ে একেবারেই সুবিধা পাওয়া যায় না।’ এসব কারণেই অত্যাধুনিক ইনডোর গড়ে তোলার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিসিবি।