ড্র হয়েছে পিএসজি ও ম্যানচেস্টার সিটির মধ্যকার হাইভোল্টেজ ম্যাচ


প্যারিসে পিএসজিকে রুখে দিল ম্যানসিটি

পিএসজি ও ম্যানচেস্টার সিটির মধ্যকার চ্যাম্পিয়নস লিগের হাইভোল্টেজ ম্যাচে জয় পায়নি কেউই। আক্রমণাত্বক ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্রয়ের মুখ দেখে। তবে দু’টি অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে সেমিফাইনালের দৌড়ে সিটিজেনরা খানিকটা হলেও এগিয়ে থাকবে।

ঘরের মাঠ প্যারিসের পার্ক ডেস প্রিন্সেসে প্রথমে পিএসজিকেই গোল হজম করতে হয়। মাঝমাঠে ব্লেইস মাতুইদির ভুল পাসের খেসারত দেয় স্বাগতিকরা। মিডফিল্ড থেকে বল নিয়ে দ্রুতগতিতে পিএসজির ডি-বক্স সীমানায় গিয়ে কেভিন ডি ব্রুইনকে পাস দেন ফার্নান্দো। ডান পায়ের শটে বল জালে পাঠাতে (৩৮ মিনিটে) কোনো ভুল করেননি বেলজিয়ান উইঙ্গার।

 

তিন মিনিট বাদেই হিরো থেকে ভিলেনে পরিণত হন  ফার্নান্দো!  গোল-কিক থেকে ডি-বক্সের বাইরে দাঁড়ানো ফার্নান্দোর কাছে বল বাড়িয়ে দেন জো হার্ট। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার বোধ হয় খানিকটা উদাসীনই ছিলেন।

পাশে যে জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ দাঁড়ানো তা যেন দিব্যি খেয়ালই করেননি! কিছু বুঝে উঠার আগেই গোল উৎসবে মাতেন সুইডিশ তারকা। বেশ দেরিতেই ফার্নান্দো বল ক্লিয়ার করতে যান, আর তা ইব্রার পায়ে লেগে জালে জড়ায়।

প্রথমার্ধের ১-১ সমতার পর দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলের আক্রমণাত্মক ফুটবল ছিল আরো দর্শনীয়। এবার উল্টো পিএসজিই লিড নেয়। ৫৯ মিনিটে আদ্রিয়েন রাবিয়টের গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ৭২ মিনিটের মাথায় ভিজিটরদের সমতায় ফেরান ফার্নান্দিনহো। বলা যায়, স্বদেশী ফানান্দোর ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করেন ৩১ বছর বয়সী এ মিডফিল্ডার।

জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে শেষ মিনিট পর্যন্ত লড়াই করে যায় পিএসজি-ম্যানসিটি। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ড্রতেই ম্যাচের নিষ্পত্তি ঘটে। তবে ঘরের মাঠে ডি মরিয়া-ইব্রা-কাভানির পারফরম্যান্স যে স্বাগতিক দর্শকদের ‘তুষ্ট’ করতে পারেনি তা ছিল স্পষ্ট।

আগামী মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) শেষ আটের ফিরতি পর্বের ম্যাচে ম্যানসিটির মাঠে নামবে পিএসজি। ইতিহাদ স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত পৌনে ১টায়। অ্যাওয়ে গোলে সিটিজেনরা এগিয়ে থাকায় লঁরা ব্লাঁর শিষ্যদের সামনে এখন কঠিন চ্যালেঞ্জ।