শহীদ মিনারে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে স্বেচ্ছাসেবীদের হাতাহাতি


IMG_6977 (1)

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিতে যাওয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে স্বেচ্ছাসেবীদের হাতাহাতি হয়েছে। এ ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছেন। ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে একুশে ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ২০ মিনিটে শহীদ মিনারের উদ্দেশ্যে গুলশানের বাসা থেকে রওয়ানা হন খালেদা জিয়া। পথে হাই কোর্ট মোড় ও দোয়েল চত্বরে দুই দফায় খালেদা জিয়ার গাড়িবহর আটকানো হয়। রাত ১টা ২৫ মিনিটে খালেদা জিয়া শহীদ মিনারে পৌঁছালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকসহ কয়েকজন শিক্ষক তাকে এগিয়ে আনতে গেলে বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের ধাক্কা দিয়ে এগিয়ে আসেন। এ সময় ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মো. জিয়াউর রহমান পড়ে যান। পরে খালেদা জিয়ার সঙ্গের নেতাকর্মীরা শহীদ বেদীতে উঠতে গেলে সেখানে শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা স্বেচ্ছাসেবীরা বাধা দেন। এ সময় নেতাকর্মীরা তাদের ওপর চড়াও হন। বিএনপি কর্মীদের মারধরে রোভার স্কাউটের সদস্য মো. তানসির রাব্বি (বাঁধন), রিয়াজ ও জুবায়েরসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। জুবায়ের ডান হাতে, বাঁধন ডান পায়ে হাঁটুর নিচে এবং রিয়াজ এক পায়ে আঘাত পেয়েছেন। শহীদ মিনারে র‌্যাবের অস্থায়ী চিকিৎসা কেন্দ্রে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। বিএনপিকর্মীদের অনেকে জুতা পরে শহীদ বেদীতে ওঠেন বলেও জানান এক স্বেচ্ছাসেবী। ঘটনার একটি টেলিভিশন ফুটেজে কয়েকজনকে স্যান্ডেল হাতে মারপিটে উদ্যত হতে দেখা গেছে। এ বিষয়ে বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান বলেন, শহীদ মিনারে যেতে বিএনপি নেত্রীকে তিন জায়গায় ‘ব্যারিকেড’ দেওয়া হয়। এরপর শহীদ মিনারে পৌঁছালে নেত্রীর সঙ্গে ফুল দিতে যাওয়া নেতাদের আটকানো হয়। আমাদের নেতাদের নাজেহাল করা হয়েছে। পরে উত্তেজনা দেখা দিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিএনপি নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলেও দলটির এক নেতা অভিযোগ করেছেন।