এবার ঢাকায় হবে দোতলা ফুটপাত


a

রাজধানীর ফুটপাতগুলো পথচারীবান্ধব নয়। হকারদের দৌরাত্ম্য, বিভিন্ন অস্থায়ী ক্ষুদ্র স্থাপনা ও যাত্রীবিড়ম্বনা ইত্যাদি অকার্যকর করে রেখেছে ফুটপাথগুলোকে। এবার তাই দোতলা ফুটপাত (এলিভেটেড ওয়াকওয়ে) নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।প্রথম পর্যায়ে গুলিস্তান এলাকায় নির্মাণ করা হবে এই ফুটপাত সড়ক। এরই মধ্যে দোতলা ফুটপাতের সম্ভাব্যতা, নকশা, নির্মাণশৈলীসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রমের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। তিনটি প্রতিষ্ঠান দরপত্রে অংশ নিয়েছে। বর্তমানে চলছে সেগুলোর পর্যালোচনা ও মূল্যায়ন। তবে নগর পরিকল্পনাবিদদের সংশয় রয়েছে এ পরিকল্পনার কার্যকারিতা নিয়ে। তাদের মতে, ‘ফুটপাত দখলমুক্ত করার বদলে নেওয়া এ উদ্যোগ কোনোভাবেই বাস্তবসম্মত নয়। দোতলা রাস্তাও যে হকাররা দখল করবে না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। কারণ অনেক ফুট ওভারব্রিজেও হকারদের দৌরাত্ম্য আছে।’ নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবিব প্রশ্ন তোলেন, ‘যখন দোতলাও হকারদের দখলে চলে যাবে, তখন কি তৃতীয় তলায় আরেকটি ফুটপাত তৈরি করা হবে?’ দোতলা এ ফুটপাতে পথচারীদের ওঠানামার জন্য থাকবে এস্কালেটর (চলন্ত সিঁড়ি)। এগুলো থাকবে বিভিন্ন সড়কের সংযোগস্থলগুলোতে, যাতে সুবিধাজনক স্থান দিয়ে পথচারীরা দোতলা ফুটপাতে ওঠানামা করতে পারেন। দোতলা ফুটপাত নির্মাণের স্থান: প্রথম পর্যায়ে গুলিস্তানে দোতলা ফুটপাত নির্মাণ করে সুফল মিললে আশপাশেও বাড়ানো হবে এর পরিধি। সে ক্ষেত্রে এটিকে পল্টন, দৈনিক বাংলা মোড়, মতিঝিল, পুরানা পল্টন, কাকরাইল ও দক্ষিণে সদরঘাট পর্যন্ত সম্প্রসারিত করা হবে। প্রথম পর্যায়ে ৩৩০ মিটার দৈর্ঘ্যের দোতলা ফুটপাতটি শুরু হবে গোলাপশাহ মাজার পয়েন্ট থেকে। সেখান থেকে এটি গুলিস্তান সিনেমা হলের পাশ দিয়ে নবাবপুর রোড সংলগ্ন কাপ্তানবাজারের পাশে অবস্থিত সার্জেন্ট আহাদ পুলিশ বক্স পর্যন্ত বিস্তৃত হবে। কোথাও রাস্তার পাশ দিয়ে আবার কোথাও সড়ক বিভাজকের ওপর দিয়ে তৈরি হবে এই ফুটপাত। যেভাবে পরিকল্পনার শুরু: কিছু দিন আগে ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন ও ক্লিন এয়ার সাসটেইনেবল এনভায়রনমেন্ট (কেইজ) প্রকল্পের পরিচালক সেহাব উল্লাহ যুক্তরাষ্ট্রে এ ধরনের দোতলা সড়ক দেখতে পান। তখনই সেহাব উল্লাহকে এ বিষয়ে ভাবার পরামর্শ দেন মেয়র। এর পর সেহাব উল্লাহ এ নিয়ে অনুসন্ধান ও অধ্যয়ন করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, থাইল্যান্ডের ব্যাংককসহ বেশ কয়েকটি দেশের ব্যস্ততম শহরে এ ধরনের এলিভেটেড ওয়াকওয়ে আছে। এর ধরন ফুট ওভারব্রিজের বড় সংস্করণ বা অনেকটা সরু ফ্লাইওভারের মতো। যাতে অন্তত চারজন লোক পাশাপাশি হাঁটতে পারে।’