১০ বছরে দরিদ্র হবে আরও ২০ কোটি মানুষ : জাতিসংঘ


করোনাভাইরাস মহামারির দীর্ঘকালীন প্রভাবের কারণে আগামী দশ বছরে দরিদ্র সীমার নিচে চলে যাবে আরও ২০ কোটির বেশি মানুষ। সম্প্রতি জাতিসংঘ এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে অতি দরিদ্র মানুষের সংখ্যা একশ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। ইউএন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (ইউএনডিপি) এক নতুন গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

করোনা মহামারির কারণে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হচ্ছে আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া সাধারণ মানুষ। আগামী এক দশকে ব্যাপক হারে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাবে। না খেতে পেয়ে দিন কাটাতে হবে বহু মানুষকে। জাতিসংঘের নতুন এক গবেষণা অনুযায়ী, আগামী দশ বছরের মধ্যে বিশ্বজুড়ে আরও ২০৭ মিলিয়ন বা ২০ কোটিরও বেশি মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাবে।

সারাবিশ্বেই ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে করোনাভাইরাস। বিভিন্ন দেশের আর্থিক অগ্রগতি থমকে গেছে। কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ। সেভাবে নতুন কর্মসংস্থানও হচ্ছে না। ফলে বিভিন্ন দেশের আর্থিক বৃদ্ধি, সাধারণ মানুষের জীবনযাপনের মানোন্নয়ন থমক গেছে।

ইউএন ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামের নতুন গবেষণা বলছে, আগামী ১০ বছরে বিশ্বে দ্রুত গতিতে দারিদ্র্যের হার বাড়বে। মহামারির প্রভাব হবে সুদূরপ্রসারী। বিশ্বজুড়ে শোচনীয় পরিস্থিতি তৈরি করবে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস।

ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, পুরুষদের তুলনায় নারীদের পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। আগামী দশকে ১০২ মিলিয়ন নারী দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাবে। এর ফলে বিশ্বজুড়ে নারী পাচারসহ নানা ধরনের অপরাধও বাড়বে।

একইরকম পূর্বাভাস দিয়েছে আন্তর্জাতিক আর্থিক তহবিল আইএমএফ। বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির পক্ষ থেকে ২০২১ সালে আরও বড় বিপদ আসছে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, উপযুক্ত ব্যবস্থা না নিলে দুর্ভিক্ষ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভ্যাকসিন আসার পর করোনাকে হারাতে পারবে পুরো বিশ্ব। কিন্তু এর ক্ষত থেকে যাবে। যা আগামী ১০ বছর ধরে টের পাবে বিশ্ববাসী। স্বাভাবিকভাবেই এই রিপোর্ট চিন্তা বাড়িয়েছে বিভিন্ন দেশের শাসকদের।