১৫ বছরের নিচে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নয়


আগে বয়সসীমার কোনও বালাই-ই ছিল না আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। বিস্ময়কর প্রতিভাধর কোনও ক্রিকেটার যদি ১০-১২ বছর বয়সী বালকও হয়, তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নামিয়ে দিতে কোনও বাধা ছিল না। এখন থেকে বিশেষ পরিস্থিতি ছাড়া এটি আর চলবে না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) নিয়ম করে দিয়েছে ১৫ বছরের কম বয়সে কেউ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারবে না।

আইসিসি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘খেলোয়াড়দের ভবিষ্যৎ নিরাপত্তা বিধানে বোর্ড ন্যূনতম বয়সসীমা চালু করেছে যা আইসিসির সব ইভেন্ট, দ্বিপক্ষীয় ক্রিকেট এবং অনূর্ধ্ব-১৯ সহ সব ক্রিকেটে প্রযোজ্য। ছেলে, মেয়ে অথবা অনূর্ধ্ব-১৯ যেকোনও ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলতে হলে ন্যূনতম বয়স হতে হবে ১৫ বছর।’

 তবে এই নিয়মে একটা ফাঁকও রেখে দিয়েছে আইসিসি। সেটি হলো বিশেষ পরিস্থিতিতে কোনও সদস্য বোর্ড আইসিসির কাছে ১৫ বছরের নিচের কাউকে খেলানোর জন্য আবেদন করতে পারে। আইসিসি নির্দিষ্ট খেলোয়াড়টির অভিজ্ঞতা, মানসিক বিকাশ ও সার্বিক কল্যাণকর পরিস্থিতি বিবেচনা করে যদি দেখে সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের চাহিদার সঙ্গে খাপ খাইয়ে চলতে পারবে, তখন তাকে খেলার অনুমতি দিতে পারে।

আইসিসির এই নিয়মে নিশ্চিত করেই বলা যায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হুটহাট করে হাসান রাজাদের আবির্ভাব দেখা যাবে না। ওয়াসিম আকরাম- ওয়াকার ইউনিসদের সঙ্গে পাকিস্তানের হয়ে হাসান রাজার যেদিন ফয়সালাবাদে টেস্ট অভিষেক হয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, তার বয়স ছিল ১৪ বছর ২২৭ দিন। পরে জন্মতারিখ নিয়ে বিশ্ব জুড়েই একটা সন্দেহ তৈরি হয়, মেডিকেল টেস্ট হয়। রেকর্ডের দাবিটা পরে ছেড়ে দেয় পাকিস্তান। রাজার প্রকৃত জন্মতারিখ নিশ্চিত না হলেও ধরা হয় পনেরো পেরোনোর আগেই তার অভিষেক হয়েছে। ১৯৯৬ সালের ২৪ অক্টোবর টেস্ট অভিষেকের পর আর মাত্র ৬টি টেস্ট ও ১৬টি ওয়ানডে খেলেই রাজার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেছে ২০০৫ সালে।

রাজার আগে সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট ক্রিকেটারও একজন পাকিস্তানি, তিনি কিংবদন্তি হানিফ মোহাম্মদের ছোট ভাই মুশতাক আহমেদ। ১৯৫৯ সালের ২৬ মার্চ, লাহোরে যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই লেগস্পিনিং অলরাউন্ডারের অভিষেক হয়, তার বয়স ছিল ১৫ বছর ১২৪ দিন।

খুব কম বয়সে কাউকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নামিয়ে দেওয়ার প্রচলন এই উপমহাদেশেই বেশি। সবচেয়ে বেশি পাকিস্তানে। ভারতে সর্বকনিষ্ঠ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। টেস্টে শচীনের অভিষেক হয়েছিল ১৬ বছর ২০৫ দিন বয়সে, পাকিস্তানের বিপক্ষে। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে কম বয়সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক মোহাম্মদ আশরাফুলের। ১৬ বছর ২২৫ দিন বয়সে তার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। আর ১৭ বছর ৫৯ দিন বয়সে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অভিষেকের দু’দিন পরই তিন অঙ্কের রানের দেখা পান, যেটি এখনও তাকে সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান হিসেবে ধরে রেখেছে রেকর্ড বইয়ে।