মোশাররফের আবেদন খারিজ করেছে হাইকোর্ট


অর্থ পাচার মামলায় অভিযোগ গঠনের বিরুদ্ধে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের করা একটি আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি মাহমুদুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীব খুরশীদ আলম খান।

যুক্তরাজ্যে মোট ৯ কোটি ৫৩ লাখ ৯৫ হাজার ৩৮১ টাকা পাচারের অভিযোগে ২০১৪ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি দুদকের পরিচালক নাসিম আনোয়ার বাদী হয়ে রাজধানীর রমনা মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

এজাহারে উল্লেখ রয়েছে, খন্দকার মোশাররফ ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত দুর্নীতি ও মানিলন্ডারিংয়ের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের Lloyds TSB Offshore Private Bank- এ তার নিজের ও স্ত্রী বিলকিস আক্তারের যৌথ নামে ৮ লাখ ৪ হাজার ১৪২ ব্রিটিশ পাউন্ড পাচার করেন। যা বাংলাদেশি টাকায় ৯ কোটি ৫৩ লাখ ৯৫ হাজার ৩৮১ টাকা। এ টাকা তিনি বিভিন্ন সময় ১০৮৪৯২ নম্বরে ফিক্সড টার্ম ডিপোজিট হিসেবে জমা করেন।

দুদকের অনুসন্ধানে মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইন লঙ্ঘিত হওয়ায় মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০০২ এর ১৩ ধারা এবং ২০০৯ ও ২০১২ এর চার ধারায় মানিলন্ডারিংয়ের মামলা দায়ের করা হয় বিএনপির হেভিওয়েট এ নেতার বিরুদ্ধে।

২০১৪ সালের ১২ মার্চ রাত সাড়ে ১০টায় খন্দকার মোশাররফকে গুলশানে তার নিজ বাসা থেকে আটক করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এ মামলায় গত ১০ জানুয়ারি আপিল বিভাগ থেকে জামিন পাওয়ার পর ১৩ জানুয়ারি মুক্তি পান তিনি।

এ মামলায় গত বছরের ২৮ আগস্ট ঢাকার বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আতাউর রহমান অভিযোগ গঠন করেন। বর্তমানে মামলাটি সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে রয়েছে।