মেসিই শুধু যাবেন না, নেইমারকেও নিয়ে যাবেন!


 

লিওনেল মেসি আর বার্সেলোনার সঙ্গে নেই। সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ২০ বছরেরও বেশি সময়ের গভীর সম্পর্কটা একেবারে শেষ। নতুন ঠিকানার খোঁজে আর্জেন্টাইন জাদুকর।

মেসির নতুন গন্তব্য কোথায়? আলোচনায় আছে তিনটি ক্লাব-ম্যানচেস্টার সিটি, প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) আর ইন্টার মিলান। এই তিন ক্লাবের মধ্যে আবার এগিয়ে ম্যানচেস্টার সিটি। সেখানে যে মেসির সাবেক কোচ পেপ গার্দিওলা আছেন!

গার্দিওলার সঙ্গে মেসির কেমন সুসম্পর্ক, সেটা প্রায় সবারই জানা। ২০০৭ সালে বার্সার ‘বি’ দল এবং পরের বছর তাদের সিনিয়র দলের দায়িত্ব নেন এই স্প্যানিয়ার্ড। ছিলেন ২০১২ পর্যন্ত।

গুরু-শিষ্যের পুনর্মিলনী আবার হতে পারে মেসি ম্যানচেস্টার সিটিতে গেলে। তবে গুঞ্জন এখানেই শেষ নয়। মেসিই শুধু একাই যাবেন না, ম্যানসিটিতে বার্সেলোনার সাবেক সতীর্থ নেইমারকেও নাকি নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন আর্জেন্টাইন তারকা।

বার্সার সঙ্গে মেসির দূরত্বের বড় একটা কারণ ছিলেন এই নেইমার। বারবারই মেসি বলে আসছিলেন, ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টারকে ন্যু ক্যাম্পে ফেরাতে হবে। কিন্তু বার্সার ম্যানেজম্যান্ট সে কথা কানে তুলেনি। দলবদলে এর ওর পেছনে টাকা খরচ করলেও নেইমারকে নিতে তারা কোমড় বেঁধে চেষ্টা করেনি বলেই মনে করেন মেসি।

সেই থেকে আস্তে আস্তে ঝামেলার শুরু। এরপর বেতন ভাতাসহ নানাবিধ সমস্যা নিয়ে বিরোধ। সেই জল গড়াতে গড়াতে অবশেষে ২০ বছরের সম্পর্ককে শেষ করার পথেই হাঁটলেন মেসি।

‘ইএসপিএন’ এর প্রতিবেদনে এসেছে, ব্রাজিলের ধারাভাষ্যকার হোর্হে নিকোলা জানিয়েছেন ভেতরের এক খবর। আর সে বোমা ফাটানো খবর হলো, মেসি নাকি নেইমারকে তার ইতিহাদে যাওয়ার বিষয়টি অবহিত করেছেন। সেইসঙ্গে পিএসজি ছেড়ে নেইমারকে তার দলে আসার বুদ্ধিও নাকি দিয়েছেন আর্জেন্টাইন খুদেরাজ।

নেইমারও মেসি বলতেই অজ্ঞান। এর আগে অনেকবারই চেষ্টা করেছিলেন বার্সায় ফিরতে। তবে পিএসজিতে নেইমারের চুক্তি আছে আরও দুই বছর। এই অবস্থায় তাকে দলে নিতে হলেও বড় অংকের ট্রান্সফার ফি দিতে হবে ম্যানসিটিকে।

মেসিকে নিলে তো আকাশছোঁয়া খরচ হবেই, তার সঙ্গে নেইমারকে যোগ করতে হলে রীতিমত অর্থের টানাটানিতে পড়ে যেতে হবে ইংলিশ ক্লাবটিকে। দেখা যাক, শেষ পর্যন্ত কি হয়!