স্যাভলনের নামে সাভলন বিক্রি : ৪ দোকানকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা


বিএসটিআইয়ের ট্যাগবিহীন নকল হ্যান্ডওয়াশ ও অনুমোদনহীন স্যানিটাইজার বিক্রয়ের অভিযোগে রাজধানীর নিউ মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করেছে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

অভিযানকালে ৪টি দোকান থেকে আনুমানিক পাঁচ লাখ টাকার নকল ও বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং হ্যান্ডওয়াশ জব্দ করেছে র‌্যাব। পরে সেখানে র‍্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত ৪টি প্রতিষ্ঠানকে আড়াই লাখ টাকা জরিমানা করেন।

বুধবার (১০ জুন) বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত র‌্যাব-৪ এর সহযোগিতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান।

র‌্যাব-৪ এর কোম্পানি কমান্ডার পুলিশ সুপার মো. শাহাব উদ্দিন কে বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতিতে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নকল স্যানিটাইজার, লিকুইড অ্যান্টিসেপটিক বাজারজাত করে বিক্রি করে আসছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে বুধবার বিকেলে র‌্যাব-৪ এর সহকারী পুলিশ সুপার রিফাত বাশার তালুকদারের নেতৃত্বে একটি দল রাজধানীর নিউমার্কেটে অভিযান পরিচালনা করা হয়।’

মেসার্স জননী হার্ডওয়ার স্টোর, খায়ের হার্ডওয়ার স্টোর, কুমিল্লা হার্ডওয়ার স্টোর এবং হক অ্যান্ড ব্রাদার্স দোকানে দেখা যায় এসিআই কোম্পানির স্যাভলন পণ্যের স্বরূপ সালভন (salvon) ও সাভরন (savron) নামে বিক্রি করা হচ্ছে। এজন্য ১৯৪০ সালের ওষুধ আইনের ১৮ (বি) ধারায় মেসার্স জননী হার্ডওয়ার স্টোরের মালিক মো. আকতার হোসেনকে (৩৫) ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

একইভাবে পণ্য বিক্রি করায় খায়ের হার্ডওয়ার স্টোরের মালিক আবুল খায়েরকে এক লাখ টাকা, কুমিল্লা হার্ডওয়ার স্টোরের মালিক মো. আবুল কালামকে ৫০ হাজার এবং হক অ্যান্ড ব্রাদার্স দোকানের মালিক মো. মোশারফ হোসেনকে (২৭) ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা করা হয়।

এছাড়া ওই চার দোকান থেকে ৫ লাখ টাকা সমমূল্যের এসিআই কোম্পানির স্যাভলন পণ্যের স্বরূপ সালভন (salvon) ও সাভরন(savron) নামের নকল পণ্য জব্দ করা হয়।