গোপনে এশিয়া কাপের আয়োজক বদলের সিদ্ধান্ত হয়ে গেল!


 

সোমবার এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভায় বড় কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। মূলত এশিয়া কাপ নিয়েই আলোচনা হয়েছে। কিন্তু ধোঁয়াশা কাটেনি। আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়নি।

তবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সভাপতি শাম্মি সিলভা দাবি করলেন, এশিয়া কাপ আয়োজনের ব্যাপারে এসিসির সভা থেকে সবুজ সংকেত পেয়েছেন তারা। এখন সরকারের কাছ থেকে অনুমোদন পেলেই চলবে।

এশিয়া কাপের এবারের আসরটি হওয়ার কথা আগামী সেপ্টেম্বরে। আয়োজক হিসেবে ছিল পাকিস্তানের নাম। কিন্তু পাকিস্তানের মাটিতে ভারত খেলতে যাবে না বলে বিকল্প ভেন্যুর পরিকল্পনা করা হয় করোনা আসার আগেই। সেক্ষেত্রে আরব আমিরাতে এবারের আসরটি হবে বলেই শোনা যাচ্ছিল।

তবে এখন পরিস্থিতি বদলে গেছে। শ্রীলঙ্কায় করোনা পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে চলে আসলেও ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশের মতো অবস্থা ভালো নয় সংযুক্ত আরব আমিরাতেরও। সেখানে ইতিমধ্যেই প্রায় ৪০ হাজার করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।

লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড প্রেসিডেন্ট এশিয়া কাপের ভেন্যু বদলের বিষয়টি নিয়ে বলেন, ‘আমরা পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সামনে এই বিষয়টি নিয়ে কথা তুলেছিলাম। তারা করোনাভাইরাস আতঙ্কে এবারের আসরটি আয়োজন করতে চাইছে না।’

ফলে বল চলে এসেছে শ্রীলঙ্কার কোর্টে। এখন তাদের সরকার অনুমোদন দিলেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে। শাম্মি সিলভা বলেন, ‘এখন এই আসর আয়োজনে ব্যাপারে সরকারের সঙ্গে কথা বলতে হবে আমাদের।’

এশিয়া কাপের এবারের আসরটি হবে টি-টোয়েন্টি ফরমেটে। এতে অংশ নেবে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান এবং বাছাইপর্ব পেরিয়ে আসা আরেকটি দল। এই টুর্নামেন্টের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভারত।