কাশ্মিরে পাকিস্তানের গোয়েন্দা কবুতরের উপস্থিতি নিয়ে তুলকালাম


ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে পুলিশের হাতে ‘সন্দেহভাজন’ একটি কবুতর ধরা পড়েছে। পাখিটি সোমবার কাঠুয়া জেলার হিরানগর থানার পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। সন্দেহজনক মনে হওয়ায় পরে তাকে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হয়।

পায়রাটির পায়ে একটি গোলাপি রঙ-এর কাপড়ের টুকরো ও ট্যাগ রয়েছে। ইতোমধ্যেই এটিকে ‘সন্দেহভাজন পাক গোয়েন্দা’ হিসেবে নথিভুক্ত করেছেন কর্মকর্তারা। এর তদন্তকাজও শুরু হয়েছে। সন্দেহভাজন পায়রাটিকে উঁচুতে খাঁচা করে নিরাপদে রাখা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, কবুতরটি রবিবার সন্ধ্যা ৭টা নাগাদ আন্তর্জাতিক সীমান্ত লাগোয়া চাড়ওয়াল জেলার গীতাদেবীর বাড়িতে উড়ে আসে। তিনিই পায়রাটিকে ধরেন। পরে এর পায়ে একটি গোলাকার রিং দেখতে পান তিনি।

পুলিশের একজন ঊর্ধতন কর্মকর্তা এনডিটিভি বলেন, রিং-এর ওপরে একটি ফোন নম্বর রয়েছে। সেজন্য পায়রাটিকে চাড়ওয়ালের সরপঞ্চ মানিয়ারির হাতে তুলে দেওয়া হয়”।

গ্রামপ্রধান পায়রাটিকে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর হাতে তুলে দেন। পরে তাকে স্থানীয় হিরানগর থানার পুলিশের হাতে তুলে দেয় পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত পায়রাটির মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু দেখতে পাওয়া যায়নি, তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে জম্মুর বিশেষ শাখা।

শৈলেন্দ্র মিশ্র নামের পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, আমরা বলতে পারব না যে এটা গুপ্তচরের কাজে লাগানো হয়েছিল কিনা। স্থানীয়রা এর পায়ে একটি টুকরো দেখতে পেয়েছে। তারা পায়রাটিকে ধরে ফেলে। কয়েকজন সেটিকে কোড বার্তা বলেছেন। পাকিস্তানের পঞ্জাবে, মালিকানার জন্য পায়রার পায়ে কাপড়ের টুকরো বেঁধে রাখা হয়।

এক কর্মকর্তা বলেন, ‘এটা স্পর্শকাতর এলাকা, কারণ এটি আন্তর্জাতিক সীমান্তবর্তী। এই পথে অনুপ্রবেশও খুব নিয়মিত ব্যাপার।’