২০ লাখ কোটি রুপির প্রণোদনা ঘোষণা করলেন মোদি


করোনা মহামারি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদি ২০ লাখ কোটি রুপির এই প্যাকেজের রূপরেখা হাজির করেছেন। এই প্রণোদনা ভারতের জিডিপির প্রায় দশ শতাংশ। মোদি বিস্তারিত না জানালেও বলেছেন  অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন তা ঘোষণা করবেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এখবর জানিয়েছে।

ভাষণে মোদি ঘোষণা দিয়েছেন,  গরিব, কৃষক, শ্রমিক, অভিবাসী শ্রমিক, ছোট ব্যবসায়ী, কুটির শিল্প, মাঝারি শিল্প, বড় শিল্প-  সবার জন্যই প্যাকেজে কিছু না কিছু ব্যবস্থা থাকবে। আর এই প্যাকেজের উদ্দেশ্য হলো, ‘স্বনির্ভর ভারত’। তাই এর নাম দেওয়া হয়েছে ‘আত্মনির্ভর ভারত আর্থিক প্যাকেজ’।

ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাম্প্রতিক সিদ্ধান্ত এবং লকডাউনের শুরুতে ঘোষণা করা আর্থিক প্যাকেজ স্বনির্ভর ভারতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। ফলে মোট প্রণোদনার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২০ লাখ কোটি রুপি।

এই প্যাকেজ ঘোষণার পাশাপাশি মোদি আরও জানিয়েছেন,  ১৭ মে’র পরও লকডাউন থাকবে, তবে কড়াকড়ি অনেকটাই কমবে। তিনি বলেন, করোনা এখন বহু দিন পর্যন্ত আমাদের জীবনে থাকবে। এই সত্য স্বীকার করে নিয়েই জীবনকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চতুর্থ লকডাউনের নিয়ম সম্পূর্ণ আলাদা হবে আর এগুলো রাজ্য সরকারের পরামর্শেই নির্ধারণ করা হবে। নতুন পদক্ষেপগুলো ১৮ মে’র আগেই ঘোষণা করা হবে। আমরা লড়াই চালিয়ে যাবো আর নতুন নিয়ম মেনে সামনে এগিয়ে যাবো।’

নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘আমাদের চ্যালেঞ্জ দুই ধরনের- রোগের সংক্রমণের হার কমাতে হবে এবং পর্যায়ক্রমে মানুষের কাজকর্মের পরিমাণ বাড়াতে হবে।’ তিনি বলেন, আমরা যদি ধারাবাহিকভাবে লকডাউন তুলে নেওয়ার কথাও ভাবি তাহলে আমাদের জোরালোভাবে মনে রাখতে হবে যে যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা টিকা বা ওষুধ না পাচ্ছি ততক্ষণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সবচেয়ে বড় অস্ত্র শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা।