ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ১ জুনের আগে নয়


ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ গত মাস থেকেই একটি প্রকল্পের আওতায় মাঠে নামার চিন্তাভাবনা করছে। যেটিকে বলা হচ্ছে প্রকল্প পুনরারম্ভ বা প্রজেক্ট রিস্টার্ট। আজ সোমবার যুক্তরাজ্য সরকার আগামী ১ জুন থেকে এটি শুরু করার অনুমতি দিয়েছে। তবে অবশ্যই কঠিন শর্তে। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে পাঁচটি পরীক্ষা সম্পন্ন হলেই কেবল শুরু হতে পারে। শুধু ইংলিশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগই নয়, যত পেশাদার খেলা আছে সবই এর আওতায়। এবং খেলা হবে দর্শকশূন্য ভেন্যুতে।

‘আমাদের পুনর্গঠন পরিকল্পনা (আওয়ার প্ল্যান টু রিবিল্ড)‘ নামে ৬০ পৃষ্ঠার যে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে সরকার, তাতে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড দ্বিতীয় ধাপের অংশ। নির্দেশনা  অনুযায়ী বড় ধরনের সামাজিক সংস্পর্শ এড়িয়ে সম্প্রচারের জন্য খেলাধুলা ও সাস্কৃতিক কর্মসূচি আয়োজিত হতে পারবে শুধু দর্শকশূন্য ভেন্যুতে। তবে আবার শুরুটা নির্ভর করবে সরকারি পাঁচটি পরীক্ষার ওপর। যার মধ্যে মূল বিষয় হলো প্রতিদিনের মৃত্যুহার ধারাবাহিকভাবে ও টেকসই আকারে কমবে। সংক্রমণের হারটাও এমন নিচে থাকবে যা সহজে সামাল দেওয়া যায়।

নির্দেশনা কয় পৃষ্ঠার সেটি নিয়ে বিতর্ক আছে। দ্য গার্ডিয়ান বলছে ৬০ পৃষ্ঠার, বিবিসির দাবি ৫০ পৃষ্ঠার। সে যাই হোক, নির্দেশনা পেয়ে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো প্রকল্প পুনরারম্ভ নিয়ে আলোচনায় বসে গেছে। করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৩ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে প্রিমিয়ার লিগ। ৩৮০ ম্যাচের মধ্যে ৯২টিই রয়েছে বাকি। ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে ২৫ পয়েন্ট এগিয়ে শীর্ষে আছে লিভারপুল, যদিও একটি ম্যাচ বেশি খেলেছে তারা (২৯)।

১ জুনের আগে কোনও পেশাদার খেলা নয়-সরকারি এই নির্দেশ মেনে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ যদি ওই তারিখেই শুরু হয়, তাহলেও দেখা যাচ্ছে ক্রিকেট শুরু হবে একমাস পরে। কারণ ইংলিশ অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) আগেই সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে ১ জুলাইয়ের আগে মাঠে কোনও ক্রিকেট চলবে না।

৯ রাউন্ড বাকি থাকা প্রিমিয়ারশিপ রাগবি শুরু হবে জুলাইয়ের প্রথম দিকে। সিলভারস্টোনে ফর্মুলা-১ রেস হতে পারে ১৯ ও ২৬ জুলাই। বক্সিংও দর্শকশূন্য ভেন্যুতে শুরু হতে পারে জুলাইতে। যেকোনও ব্রিটিশ বক্সিং শোতে বক্সারদের সুরক্ষা মাস্ক পরতে হবে রিং ওয়াকে, আর দুই রাউন্ডের মাঝে আগের মতো থুতু ফেলা যাবে না।